• সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬
ads
১০ হাজার উট মেরে  ফেলা হবে আজ

ফাইল ছবি

অস্ট্রেলিয়া

পানি সংকটে অস্ট্রলিয়া

১০ হাজার উট মেরে ফেলা হবে আজ

  • প্রকাশিত ০৮ জানুয়ারি ২০২০

তীব্র খরার মুখে দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় ১০ হাজার উট মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের আনানজু পিতজানৎজাতজারা ইয়ানকুনিৎজাতজারা ল্যান্ডস (এওয়াইপি) এলাকার এক আদিবাসী নেতা এ নির্দেশ দিয়েছেন। এ আদিবাসী নেতাসহ অন্যদের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে আদেশ আসার পর উটগুলো মারার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার হেলিকপ্টার থেকে পেশাদার শুটাররা গুলি করে হত্যা করবে উটগুলোকে। খবর ডেইলি  মেইল। 

১০ হাজার উট গুলি করে হত্যা করতে পাঁচ দিন সময় লাগবে বলে জানানো হয়েছে। তীব্র খরার মধ্যে পানির সন্ধানে উটগুলো আশপাশের জনবসতি তছনছ করে ফেলছে। এই উৎপাত থেকে বাঁচার জন্যই এরকম হিংস্র সিদ্ধান্ত নিয়েছে দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসী নেতারা। 

এ ছাড়া, মিথেন গ্যাস উৎপাদনের মাধ্যমে এই উটগুলো বৈশ্বিক উষ্ণায়নেও ভূমিকা রাখছে বলে জানানো হয়েছে। বছরে তারা এক টন পরিমাণ কার্বন-ডাই অক্সাইড তৈরি করে। 

আদিবাসী সংগঠনের নির্বাহী কমিটির সদস্য মারিটা বেকার দ্য অস্ট্রেলিয়ানকে জানিয়েছেন, এমনিতেই তীব্র গরম ও খরার মধ্যে মানুষ তাদের জীবনযাপনে হিমশিম খাচ্ছে। তার ওপর ওই উটগুলো মানুষের বাসাবাড়িতে পানির সন্ধানে আসছে। এমনকি এয়ারকন্ডিশনার মেশিন থেকে গড়িয়ে পড়া পানি থেকে তাদের পানি পান করতে দেখা যাচ্ছে। 

যদিও অস্ট্রেলিয়ার জ্বালানি এবং পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, উটগুলোর দ্বারা নিঃসরিত মিথেন গ্যাসের ব্যাপারে এত দিন মন্ত্রণালয়ের কাছে কোনো নথি ছিল না। 

ন্যাশনাল ফেরাল কেমেল ম্যানেজমেন্ট প্ল্যানের তথ্যানুযায়ী, কোনো ধরনের নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা না নেওয়া হলে প্রতি ৯ বছরে উটের সংখ্যা বেড়ে দ্বিগুণ হয়। অন্যদিকে দেশটিতে দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে চলা ভয়াবহ দাবানলে পুড়ে এখন পর্যন্ত ছোট-বড় মিলে প্রায় ৫০ কোটি প্রাণী মারা গেছে। 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads