• বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭
বাংলাদেশে রপ্তানি বন্ধ করায় ভারতে কমেছে পেঁয়াজের দাম

ফাইল ছবি

আমদানি-রফতানি

বাংলাদেশে রপ্তানি বন্ধ করায় ভারতে কমেছে পেঁয়াজের দাম

  • বাসস
  • প্রকাশিত ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশে রপ্তানি বন্ধের ঘোষণায় ভারতে পেয়াঁজের দাম কমে গেছে। ভারতের বিভিন্ন স্থলবন্দরে আটকে থাকা ২০ হাজার টন পেঁয়াজ আটকে আছে। যা বাংলাদেশে পাঠানোর অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে।

দু”দেশের আমদানি রপ্তানি সংস্থা ও ব্যবসায়ী মহল আশা করেছিলেন, ভারত সরকার যে কোন সময় পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাকগুলোকে বাংলাদেশে ঢোকার জন্য অনুমতি জারি করবে।

পেট্রাপোল আমদানি রপ্তানি সমিতির সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানিয়েছেন, আমরা বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরেছিলাম বুধবার বিকেলের মধ্যে কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পেঁয়াজ বাংলাদেশে খালাসের জন্য অনুমতি জারি হবে, দিল্লিতে বার বার যোগাযোগ করে আমরা এই আভাসই পেয়েছিলাম, কিন্তু শেষ পর্যন্ত হলো না কোনো রফা।

তিনি আরো বলেন, তবে অনুমতি না দিলে বেশীরভাগ পেঁয়াজ পচে নষ্ট হবে। এর মধ্যে আবার বৃষ্টি বাদল শুরু হয়েছে। যার চরম খেসারত দিতে হবে দু’দেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীদেরকেই।

এদিকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি নিষেধাজ্ঞা জারির পর কলকাতাসহ রাজ্যের খুচরো বাজরে কোন প্রভাব না পড়লেও পাইকারি বাজারে পড়ছে। বুধবার পাইকারী বাজারে প্রতি কেজির মূল্য ছিল ৩০ টাকা, যা এখন ২৫-২৬ টাকায় নেমে এসেছে। খুচরো বাজারে ভালো পেঁয়াজের দাম ৪০ টাকার আশেপাশে।

ফেডারেশন অফ অল ইন্ডিয়া ইমপোর্ট এ্যাশোসিয়েসনের আঞ্চলিক চেয়ারম্যান সুশীল পাটোয়ারী বলেছেন, সোমবার পেঁয়াজ রফতানির উপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা জারীর পর থেকে মহারাষ্ট্রের বড় পাইকারী বাজারগুলোতে পেঁয়াজের মূল্য ব্যাপকভাবে কমতে শুরু করেছে।

সুশিল পাটোয়ারী বলেন, ভারতের বিভিন্ন স্থলবন্দরে আটকে থাকা প্রায় ২০ হাজার টন পেঁয়াজ নিষেধাজ্ঞা জারির আগেই রপ্তানি সংক্রান্ত প্রক্রিয়া শেষ হয়েছিল, তাই অপেক্ষমান বিশাল রাশির এই পেঁয়াজ বাংলাদেশে পাঠানোর জন্য বুধবারই অন্তত বিশেষ অনুমতিটুকু দেয়া উচিৎ ছিল।

তিনি বলেন, আটকে থাকা পচনশীল এই পণ্যটির বেশীর ভাগ পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads