• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
থামছে না বাসের ‘সন্ত্রাস’

রংপুরে মুখোমুখি সংঘর্ষে দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া বিআরটিসির বাস

ছবি - বাংলাদেশের খবর

দুর্ঘটনা

থামছে না বাসের ‘সন্ত্রাস’

# জব্দ বাস থানায় নেওয়ার সময় চাপায় এসআই নিহত # পাঁচ জেলায় প্রাণ গেল # আরো ১৪ জনের

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন, সড়কে বিশৃঙ্খলা ফেরাতে ট্রাফিক সপ্তাহ পালন, বিআরটিএসহ পরিবহন সংশ্লিষ্টদের নানা উদ্যোগ সত্ত্বেও পরিস্থিতির তেমন উন্নতি হচ্ছে না। সড়ক-মহাসড়কে বিশৃঙ্খলা, দুর্ঘটনা ঘটছেই। এক্ষেত্রে ত্রাসের ভূমিকায় রয়েছে যাত্রীবাহী বাস। চালকরা কোনো ধরনের সাবধানতা, নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করেই বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছেন। ফলে একের পর এক ঘটছে দুর্ঘটনা, মরছে মানুষ। যাত্রী ছাড়াও রেহাই পাচ্ছেন না পথচারী, দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা। নিহত হচ্ছেন বাসের চালক, সহকারীরাও।

গতকাল রোববার ও গত শনিবার মধ্যরাতে সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের ৫ জেলায় কমপক্ষে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রংপুরে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হয়েছেন কমপক্ষে সাতজন। দুর্ঘটনায় দুই বাসই দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। রাজধানীর মিরপুরে জব্দ করা বাস থানায় নেওয়ার পথে ওই বাসের নিচেই চাপা পড়ে নিহত হয়েছেন পুলিশের এক এসআই। রাত ১০টার দিকে মতিঝিলে ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হন। এ ছাড়া বগুড়ায় বাস দুর্ঘটনায় তিনজন, চট্টগ্রাম ও নারায়ণগঞ্জে একজন করে নিহত হয়েছেন। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ঢাকা : দুর্ঘটনাকবলিত একটি বাস জব্দ করে থানায় নেওয়ার পথে সেটির নিচে চাপা পড়ে রাজধানীর মিরপুরে উত্তম কুমার (৩৫) নামে পুলিশের এক উপপরিদর্শক (এসআই) নিহত হয়েছেন। রোববার বিকালে রাইনখোলা মোড়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে মহানগর পুলিশের মিরপুর বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) মাসুদ আহাম্মদ জানান।

শাহ আলী থানার ডিউটি অফিসার এসআই শিউলি আক্তার বলেন, ‘বেড়িবাঁধ এলাকায় তিন দিন আগে ঈগল পরিবহনের একটি বাস দুর্ঘটনায় পড়ে।  বাসটি সেখানেই পুলিশ জব্দ করে রেখেছিল। রোববার বাসটিকে থানায় নিয়ে আসছিলেন উত্তম কুমার। তিনি বাসটির সামনে মোটরসাইকেলে ছিলেন। রাইনখোলা এলাকায় পৌঁছানোর পর বাসটি উত্তম কুমারকে প্রথমে ধাক্কা ও পড়ে যাওয়ার পর চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।’ দুর্ঘটনার পর বাসচালক বেলাল হোসেন ও তার সহকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিহত উত্তম কুমার দেড় বছর ধরে রূপনগর থানায় কর্মরত ছিলেন। এর আগে তিনি কর্মরত ছিলেন শাহ আলী ও পল্লবী থানায়।

এদিকে গতকাল রাত ১০টার দিকে মতিঝিলে ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। মতিঝিল শিল্প ভবনের সামনের রাস্তায় এ দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন— জানে আলম গাজী (৩২) ও রিপন শিকদার (৩০)। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তাদের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। নিহতদের নাম জানা গেলেও তাৎক্ষণিকভাবে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

মতিঝিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম রাব্বানী বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ট্রাকচাপায় দুই মোটরসাইকেল আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। ট্রাকটি দৈনিক বাংলা মোড় থেকে রাজউক ভবনের দিকে যাচ্ছিল। চাপা দেওয়া ট্রাকটি এখনো শনাক্ত বা জব্দ করা যায়নি।

রংপুর : রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের সিও বাজার এলাকায় যাত্রীবোঝাই অটোরিকশার যাত্রীদের বাঁচাতে গিয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হয়েছে কমপক্ষে ৭ জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন আরো ৫ জন। রোববার বেলা ১২টার দিকে ঘটা ওই দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে গেছে যাত্রীবাহী বাস দুটি।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বগুড়া থেকে ছেড়ে আসা বিআরটিসির একটি বাস রংপুরের সিও বাজার পৌঁছলে দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতগামীর একটি মিনি কোচকে সাইড দেওয়ার সময় সামনে পড়ে যাত্রীবোঝাই একটি অটোরিকশা। বিআরটিসির বাসটি ওই অটোরিকশাকে সাইড কাটিয়ে যাওয়ার সময় অপর পাশ থেকে আসা দ্রুতগামী একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই দুজন এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আরো পাঁচজন।

নিহতের মধ্যে সুমি বেগম নামে এক পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী রয়েছেন। বাকি ছয়জন হলেন নীলফামারীর সৈয়দপুরের অমিজন বেগম, ঠাকুরগাঁওয়ের আবদুর রহমান, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রোখসানা, শামীম মিয়া, পঞ্চগড়ের নুরবানু ও অজ্ঞাতপরিচয় এক শিশু। পুলিশের রংপুর রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মজিদ আলী বলেন, ‘দুর্ঘটনার জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ দুর্ঘটনাকবলিত বাস দুটি জব্দ ও সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান তিনি।

চট্টগ্রাম : জেলার মিরসরাইয়ে রেলক্রসিংয়ে উঠে পড়া বাসে ট্রেনের ধাক্কায় একজন নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন আরো ২২ জন। রোববার ভোরে বারইয়ারহাট রেলক্রসিং এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। রেলওয়ে থানার ওসি মোস্তাফিজ ভূঁইয়া জানান, ময়মনসিংহ থেকে চট্টগ্রামগামী বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেন রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় ঢাকা থেকে খাগড়াছড়িগামী এস আলম পরিবহনের একটি বাস রেললাইনের ওপর এসে পড়ে। মিরসরাই ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার রবিউল আজম জানান, ট্রেনের ধাক্কায় বাসটি উল্টে লাইনের ওপর পড়ে। ওই অবস্থায় বাসটিকে ঠেলে প্রায় ৫০ মিটার সামনে নিয়ে ট্রেনটি থামে।

পুলিশ জানায়, নিহত সুনির্মল চাকমার (৫৫) বাড়ি খাগড়াছড়ি জেলায়। আহত ২২ জনের মধ্যে বাসের চালকের অবস্থা গুরুতর। চালকসহ মোট ১৫ জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দুর্ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করেছে পূর্ব রেল কর্তৃপক্ষ। রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ডিভিশনাল ট্রাফিক অফিসার ফিরোজ ইফতেখারকে প্রধান করে গঠিত এ কমিটিকে তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। রেলওয়ে পুলিশের সীতাকুণ্ড সার্কেলের এএসআই দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ওই রেলগেটে রাতের পালায় ডিউটি ছিল গেটম্যান আরিফের। দুর্ঘটনার পর তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।’

নারায়ণগঞ্জ : নগরের সিদ্ধিরগঞ্জে যাত্রীবাহী বাসের চাপায় মিনু আক্তার (৫৫) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। রোববার সকাল ৭টায় নারায়ণগঞ্জ-শিমরাইল সড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের পুল এলাকায় রাস্তা পারাপার হওয়ার সময় আদমজী ইপিজেডের শ্রমিকদের বহনকারী একটি বাস পেছন থেকে মিনুকে চাপা দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

বগুড়া : বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে আলাদা দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত ও কমপক্ষে ৪৫ যাত্রী আহত হয়েছেন। শনিবার মধ্যরাতে মহাসড়কের শেরপুর উপজেলার মহিপুর ও ধুনট মোড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন— শিবগঞ্জ উপজেলার সংসারদীঘি গ্রামের সবেদ আলীর ছেলে জাহিদুল ইসলাম তাজ (৩৫), কাহালু উপজেলার মালঞ্চা গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে মিঠু (৩৮) ও গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাজুনিয়াপাড়া গ্রামের রঞ্জু শেখের ছেলে সাজ্জাদ হোসেন (২২)।

বগুড়ার শেরপুরের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) জাহিদ হাসান জানান, রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা থেকে রংপুরগামী এনা পরিবহনের একটি বাসের বিপরীতমুখী চম্পা পরিবহনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ৪১ জনকে উদ্ধার করে শেরপুর ও শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজন মারা যান। অপরদিকে রাত আড়াইটার দিকে মহাসড়কের শেরপুর উপজেলার ধুনট মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা একটি কভার্ড ভ্যানের পেছনে ধাক্কা দেয় এসআর পরিবহনের একটি বাস। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের সুপারভাইজার মারা যান এবং আরো ৪ জন আহত হন।

এদিকে গাজীপুর সদরের ভবানীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে একটি যাত্রীবাহী লেগুনা উল্টে ১২ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চারজনকে স্থানীয় কাজী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওদিকে ঈদুল আজহার মৌসুমে দেশের সড়ক-মহাসড়কে ২৩৭টি দুর্ঘটনায় ২৫৯ জন নিহত এবং ৯৬০ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। ঈদযাত্রার শুরুর দিন ১৬ আগস্ট থেকে ২৮ আগস্ট পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads