• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৫
ads
চৌদ্দগ্রামে দেড় মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১০

কুমিল্লায় চৌদ্দগ্রামে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সৈদপুর এলাকায় দুর্ঘটনায় এএিআই আকতার হোসেনসহ তিজন নিহত হন। দুর্ঘটনা কবলিত পুলিশের ভ্যান

ছবি : বাংলাদেশের খবর

দুর্ঘটনা

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

চৌদ্দগ্রামে দেড় মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১০

  • চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ৪৪ কিলোমিটার এলাকায় দেড় মাসে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১০ জন নিহত ও অন্তত ত্রিশজন আহত হয়েছেন। এরমধ্যে ঘোলপাশা ইউনিয়নের সৈয়দপুরে একই ঘটনায় তিনজন ও আমানগন্ডা এলাকায় দুইজন নিহত হন।

মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, গত ২ সেপ্টেম্বর সোমবার ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ঘোলপাশা ইউনিয়নের সৈয়দপুর এলাকায় দ্রুতগামী গাড়ি দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয়ায় পুলিশের এএসআইসহ তিনজন নিহত ও অপর চারজন হয়েছেন।

নিহতরা হলেন; কুমিল্লা জেলার বরুড়া থানার ছোট বাতুয়া গ্রামের দুলা মিয়ার ছেলে এএসআই আকতার হোসেন, কভার্ডভ্যানের হেলপার লক্ষীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার নন্দীগ্রামের ইসমাইল হোসেন বাবুলের ছেলে মোঃ সুমন ও নোয়াখালীর সেনবাগ থানার নিজ সেনবাগ গ্রামের ছালেহ আহমদের ছেলে মোঃ ফাহাদ। গুরুতর আহতদের দুইজন হলেন; চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের ফকিরহাট গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে রেকার চালক স্বপন ও তার ভাই হেলপার মামুন। তাদেরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার আটগ্রাম এলাকায় দ্রুতগামী গাড়ি চাপায় জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার ফুলকান্দি গ্রামের কাশেম আলী, ১৩ আগস্ট মঙ্গলবার বিকেলে চিওড়া এলাকায় মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম পৌর এলাকার শ্রীপুর খাঁ বাড়ির খোরশেদ আলমের খাঁ’র ছেলে মোঃ জিদান খাঁ, ৭ আগস্ট বুধবার রাতে ট্রেনিং সেন্টার এলাকায় পৌর এলাকার নোয়াপাড়া গ্রামের আলী আশ্রাফের ছেলে শিক্ষক আতর ইসলাম আহত হয়ে ৯ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ২১ জুলাই রোববার দুপুরে চৌদ্দগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের সামনে দ্রুতগামী গাড়ির ধাক্কায় রুপিয়া বেগম নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। তিনি পৌর এলাকার পাঁচরা গ্রামের হাফেজ আহমেদের স্ত্রী। ১৭ জুলাই বুধবার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কালির বাজার ও আমানগন্ডা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন; চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার পূর্ব ধনমুড়ির ওবায়েদুল্লাহর ছেলে নুরুল আলম জাবলু, প্রাণ গ্রুপের বিক্রয় প্রতিনিধি ব্রাক্ষণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের পড়–য়া গ্রামের জুয়েল মোল্লার ছেলে জোবায়ের ও ফেনী জেলার কুমিড়া গ্রামের গিত্তলাল দাসের ছেলে শিমুল দাস।

এ ব্যাপারে শুক্রবার বিকেলে মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির এসআই আবুল হোসেন বলেন, ‘মহাসড়কে যানজট ও দুর্ঘটনা রোধে হাইওয়ে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া কোন দুর্ঘটনার খবর পেলে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার শেষে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া ও দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িগুলো ফাঁড়িতে নেয়া হয়’।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads