• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৫
ads
নির্বাচন কমিশন ভবনে অগ্নিকাণ্ড, তদন্ত কমিটি গঠন

সংগৃহীত ছবি

দুর্ঘটনা

নির্বাচন কমিশন ভবনে অগ্নিকাণ্ড, তদন্ত কমিটি গঠন

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

রাজধানীর আগারগাঁওস্থ নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভবনের নিচতলায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় বেশকিছু ইভিএম পুড়ে গেছে। গতকাল রোববার রাত সোয়া ১১টার দিকে এ ঘটনার সূত্রপাত বলে জানা গেছে।

ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিটের প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় রাত সাড়ে ১২টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে কিভাবে আগুন লেগেছে এবং কী পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার কামরুল ইসলাম জানান, রাত সোয়া ১১টার দিকে ইসি ভবনের নিচতলায় আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট পাঠানো হয়। পরে আরো পাঁচটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। তারা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, ভবনের নিচতলায় রিসিপশন, মিডিয়া সেন্টার, নিরাপত্তা কর্মকর্তার অফিস। এছাড়া নির্বাচন ভবনের বেইজমেন্টে ইভিএম সংরক্ষণের গুদাম ও গাড়ির গ্যারেজ রয়েছে। কিভাবে আগুন লেগেছে তা তারাও বলতে পারেননি।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর জানান, নির্বাচন কমিশন ভবনের নিচতলায় কিছু ইভিএম ছিল। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কিছু ইভিএমের ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে, অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধানে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন নির্বাচন কমিশন।

রাতেই ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) মাহবুব তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তিনি বলেন, আগুনের উৎস সম্পর্কে আমরা অবহিত নই। তদন্ত করলে বোঝা যাবে কীভাবে আগুন লেগেছিল এবং কী কী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। এখানে ফায়ার, এনআইডি বিভাগ, গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলী থাকবেন। তারা তিনটি বিষয় খতিয়ে দেখবেন। আগুন লাগার কারণ, ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এবং ভবিষ্যতে যাতে আগুন না লাগে তার সুপারিশ করবেন। তিন দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া ফায়ার সেফটি কেন কাজ করেনি তাও প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর জানা যাবে।

নির্বাচন কমিশন সচিব বলেন, এই আগুনের কারণে রংপুরের উপনির্বাচনে কোনও প্রভাব পড়বে না। কারণ রংপুরসহ বিভিন্ন জেলায় ইভিএম মেশিন রয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads