• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার শঙ্কা

বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার শঙ্কা

ছবি : সংগৃহীত

কৃষি অর্থনীতি

ট্রান্সফরমার বিকল

বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার শঙ্কা

  • শেরপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে একটি ট্রান্সফরমার গত ছয় মাস ধরে বিকল থাকলেও এখনো তা পরিবর্তন করা হয়নি। ফলে চলতি বোরো মৌসুমে প্রায় হাজার বিঘা জমিতে বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। সেই সঙ্গে সেচের অভাবে বোরো চাষ করতে না পেরে দিশাহারা হয়ে পড়েছেন শতাধিক কৃষক। অন্যদিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ট্রান্সফরমার বিকলের বিষয়টি জানেন না দাবি করে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

ভুক্তভোগী কৃষক আলাউদ্দীন, আবু হেনা ও সিরাজ মিয়া জানান, উপজেলার গৌরীপুর ইউনিয়নের ধারাপানি এলাকায় ২৫০ কেভির একটি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার গত ছয় মাস আগে বিকল হয়ে পড়ে। এ দীর্ঘ সময়েও বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজন বিকল ট্রান্সফরমারটি মেরামত বা পরিবর্তনের উদ্যোগ নেয়নি। পিডিপির ওই ট্রান্সফরমারের আওতায় ৩টি গভীর নলকূপের সংযোগ রয়েছে। ওইসব নলকূপের পানিতে এলাকার শতাধিক কৃষক হাজার বিঘা জমিতে বোরো আবাদ করে থাকেন।  নলকূপ মালিক জহির উদ্দিন বলেন, ট্রান্সফরমারটি পরিবর্তন করার জন্য উপজেলা আবাসিক প্রকৌশলীর কাছে বিভিন্ন সময়ে আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু তিনি কোনো উদ্যোগ নেননি। আবাসিক প্রকৌশলী সাইদুল ইসলাম তার কাছে এক লাখ টাকা ট্রান্সফরমার পরিবর্তনের জন্য দাবি করেন। তার দাবি অনুযায়ী টাকা দিতে না পারায় ট্রান্সফরমার পায়নি সেচ পাম্প মালিকরা। বিদ্যুৎ বিভাগের উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুল ইসলাম টাকা চাওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ওই বিকল ট্রান্সফরমারের আওতায় সিঙ্গেল ফেইসে ছোট সেচ পাম্প ও বাতি জ্বালানোর সুযোগ রয়েছে। এ কারণে ট্রান্সফরমারটি পরিবর্তন করা হয়নি। অন্যদিকে ট্রান্সফরমার বিকল হওয়ার বিষয়টি জানেন না দাবি করে শেরপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী (বিউবো) সুব্রত রায় এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads