• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
কৃষকদের আগ্রহ ভুট্টা চাষে

কৃষকদের আগ্রহ ভুট্টা চাষে

ছবি : বাংলাদেশের খবর

কৃষি অর্থনীতি

কৃষকদের আগ্রহ ভুট্টা চাষে

  • মো. নাবি-উল হক লোটাস, ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর)
  • প্রকাশিত ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ভুট্টা চাষে ব্যাপক উৎসাহ দেখা যাচ্ছে কৃষকদের মাঝে। এ অঞ্চলের মাটি ও আবহাওয়া ভুট্টা চাষের অনুকূলে থাকায় এবং অধিক লাভজনক হওয়ায় কৃষকরা আমন ধান কাটার পরেই ভুট্টার বীজ রোপণ করেছেন। মানুষের খাদ্যের পাশাপাশি মাছ, হাঁস-মুরগি ও গো-খাদ্য হিসেবে ভুট্টার ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায়  এর চাহিদাও বেড়েছে অনেক গুণ। ভুট্টা গাছের সবকিছুই মানুষের দৈনন্দিন জীবনে কাজে আসে। ভুট্টার গাছের পাতা সুষম গো-খাদ্য এবং কাণ্ড জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

ঘোড়াঘাট পৌরসভার নয়াপাড়া গ্রামের কৃষক মো. আবদুল খালেক বলেন, আমি প্রত্যেক বছর ইরি ধানের পরিবর্তে ভুট্টার চাষ করি। ভুট্টা চাষে খরচ কম, ধানের তুলনায় অধিক লাভজনক এবং ধানের তুলনায় ভুট্টার রোগবালাই কম হয়। নুরজাহানপুর গ্রামের কৃষক মো. ইসাহাক মিয়া বলেন, ভুট্টার জমিতে পানি সেচ কম দিতে হয়। সে সুবিধার কারণে আমি ধান চাষের চেয়ে ভুট্টা চাষে অধিক আগ্রহী।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার নয়াপাড়া, নুরজাহানপুর, মহুয়ারবাগ, কাদিমনগর, কালুপুকুর ও ওসমানপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকরা উচ্চ ফলনশীল পালোয়ান (৯১-২০), গৌরব, মিরাকেল ও ৯৯১ সহ বিভিন্ন হাইব্রিড জাতের ভুট্টার বীজ রোপণ করছেন। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী এ বছর এই উপজেলায় মোট ভুট্টার বীজ রোপণ করা হয়েছে ১ হাজার ৯৬০ হেক্টর জমিতে, যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ৩০০ হেক্টর বেশি।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. কামাল হোসেন সরকার জানান, এ অঞ্চলটি অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় উঁচু। তাই এখানে ইরি ধানের তুলনায় ভুট্টার চাষ অধিক লাভজনক। ভুট্টার চাষে আমরা কৃষকদের উন্নত জাতের বীজ ও সার বিতরণ করেছি। এছাড়া মাঠপর্যায়ে ঘুরে ঘুরে আমরা কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের তথ্য ও পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছি।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads