• বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৫
ads

কৃষি অর্থনীতি

কৃষক এখন পুদিনা চাষে ব্যস্ত

  • মো. নাছির উদ্দিন অনিক, সীতাকুণ্ড
  • প্রকাশিত ২৪ এপ্রিল ২০১৯

রমজান সামনে রেখে সীতাকুণ্ডের ভাটিয়ারী জাহানাবাদ খাদেমপাড়ায় ব্যাপক পুদিনা চাষ হচ্ছে।  পুদিনা এখন অন্যান্য ফসলের মতো বাণিজ্যিকভাবে চাষ করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। সরেজমিনে সীতাকুণ্ড উপজেলার ভাটিয়ারী ইউনিয়নের খাদেমপাড়া এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, এলাকার চারদিকের উঁচু জমিতে ব্যাপকভাবে পুদিনার চাষ। জানা যায়, ১০ থেকে ১২টি কাণ্ড বা ঢাল নিয়ে ১টি আঁটি, যার খুচরা বাজারমূল্য ৫ টাকা। এ ধরনের ১ হাজার আঁটি পাইকাররা কিনছেন ১ হাজার থেকে ১২শ টাকায়। তারা রেয়াজউদ্দিন বাজারে নিয়ে গিয়ে অন্য পাইকারের কাছে বিক্রি করেন ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায়। পুদিনা পাতায় প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে যা ক্যানসার, হূদরোগ, অ্যালঝেইমারসের মতো ভয়ঙ্কর রোগের হাত থেকে আমাদের বাঁচাতে পারে। দিন দিন পুদিনার ব্যবহার বৃদ্ধি পাওয়ায় এর চাষ এখন অন্যান্য ফসলের মতো বাণিজ্যিকভাবে করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে। কৃষকরা এক্ষেত্রে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এলাকায় আরো অধিক হারে পুদিনা চাষ বৃদ্ধি পাবে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন। 

জাহানাবাদ এলাকার কৃষি উপ-সহকারী জন্টু জানান, এঁটেল ও দো-আঁশ মাটিতে পুদিনা সফলভাবে চাষ করা যায়। ফেব্রুয়ারি-মার্চ মাসে জমিতে কাটিং কলম লাগিয়ে ও বীজ দিয়ে পুদিনার চারা করা যায়। কিন্তু কাটিং দিয়েই চাষ করা উত্তম। পুরনো ক্ষেত থেকে কাটিং নিয়ে বীজতলায় লাগাতে হবে, কাটিংয়ের দৈর্ঘ্য হবে ৪ ইঞ্চি লম্বা। কাটিংয়ের অংশগুলোতে শিকড় গজাতে সময় লাগে সাত দিন, তাই মূল জমিতে চারা রোপণের অন্তত ১০ দিন আগে চারা তৈরি করতে হবে। কেননা জমি ভালো করে চাষ করার সময় জমির সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে গোবর বা জৈবসার মিশিয়ে দিতে হবে। সবসময় পুদিনার জমি আগাছামুক্ত রাখতে হবে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads