• শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ধান ও সবজির অপুরনীয় ক্ষতি

বরিশালের গৌরনদীর গোরক্ষডোবা গ্রামে ক্ষতিগ্রস্থ ফসলের খেত

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

কৃষি অর্থনীতি

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডব

ধান ও সবজির অপুরনীয় ক্ষতি

  • গৌরনদী প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৩ নভেম্বর ২০১৯

ঘূর্নিঝড় বুলবুলের আঘাতে বরিশালের গৌরনদী উপজেলা লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। উপজেলায় শনিবার রাত তিনটা থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে প্রায় লাক্ষাধিক গ্রাহক বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে। রোববার দুপুর সোয়া ১টায় ব্যপকভাবে আঘাত হানে। এতে উপজেলায় কয়েক হাজার মানুষ গৃহহীন পড়েছে। উপরে পরেছে লক্ষাধিক গাছপালা । উপজেলায় সদরে ৯০ ঘন্টা পরে উপজেলা সদরে মোবাইল নেটওয়ার্ক, ইন্টারনেট ও বিদ্রুৎ দিলেও গোটা গৌরনদী বিহীন । ঘূর্নিঝড়ে গাছচাপা পরে উপজেলায় ২৫ জন আহত হয়েছে। গত চার দিনে গৌরনদীর গনমাধ্যম কর্মীরা কোন সংবাদ পরিবেশন করতে পারেনি।

সরেজমিনে গিয়ে স্থানীয় লোকজন, প্রশাসন কর্মর্কতা, জনপ্রতিনিধি ও ক্ষতিগ্রস্থদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শনিবার রাত সোযা ১২টা থেকে এ তিন উপজেলায় ঝড় শুরু হয়। তাতে তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি না হলেও রাত আড়াইটা থেকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎবিহীন রয়েছে। গত রোববার সোয়া একটায় ঘূর্নিঝড়ের ব্যাপক তান্ডব শুরু হয়। ২০ মিনিট স্থায়ী ঝড়ে গৌরনদী উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে কয়েক হাজার কাঁচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্থ হয়েছে বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসন নিশ্চিত করেছেন।

রোববার দুপুরে ঝড়ে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদীর বার্থী, ইল্লা, কটকস্থল, বিজয়পুর, আশোকাঠী ও মাহিলাড়াসহ বিণিœ স্থানে গাছ পরে সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। গৌরনদী ফায়ার সার্ভিস ষ্ঠেশন ইনচার্জ মোঃ কাঞ্চন আলী মৃধা জানান, ফায়ার কর্মী ও স্থানীয়রা উদ্যোগ নিয়ে রোববার দুপুর ২টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে গাছ অপসারন করে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল চালু করা হয়। এ ছাড়া বরিশাল গোপালগঞ্জ সড়কে গাছ পওে দুই ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। বরিশাল পল্লিবিদুৎ সমিতির গৌরনদী জোনাল ম্যানেজার প্রকৌশলী জাহিদা খানম জানান, উপজেলায় বিদ্যুৎ লাইনের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ৩৩ কেভি ১১ কেভি ভোল্টের অসংখ্য খুটি ভেঙ্গে গেছে। এতে প্রায় এক লাখ গ্রহন বিদ্যুৎবিহীন হয়ে পরেছে। কবে নাগাদ সর্বত্র বিদ্যুৎ লাইন চালু হবে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে উপজেলা সদরে মঙ্গলবার বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করা হয়। সম্পূর্ন বিদ্যুৎ সংযোগ পুনঃস্থাপন করতে এক থেকে দেড় মাস লাগবে। বিদ্যুৎ না থাকায় রোববার থেকে মঙ্গলবার রাত ৯টা পর্যন্ত মুঠোফোন নেট ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছন্ন থাকে।
বুধবার গৌরনদীর নলচিড়া, মাহিলাড়া, চাঁদশী, বার্থী বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে ঘূর্নিঝড় বুলবুলের তা-ব। সর্বত্রই একই দৃশ্য সব যেন লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। উপজেলায় গাছ চাপা পরে প্রায় অর্ধ শতাধিক আহত হয়েছে। উপজেলার নন্দনপুট্রি গ্রামের মোশারফ হোসেন (৫৫) বলেন, সিডর রাতে হয়েছে দেহি নাই। এমনি ঝড় জীবনে দেহি নাই। তিনি আরো বলেন, বাহিরে তাকাতেই দেহি যেন এক দানব ধ্বংশ যজ্ঞে নেমেছে। মুহুর্তেই নিজের ঘরে বিশাল এক রেন্ড্রি গাছ উপরে পরে। এ যেন এক কেয়ামত। ঘরের লোকজন নিয়ে বাইরে ঝাপিয়ে পরে প্রান রক্ষা পাই। পৌরসভার বড় কসবা মহল্লার গোলাম মোর্শেদ মাসুদের বসত ঘওে গাছ পওে বিধ্বস্ত হয়। গৌরনদীর গোরক্ষডোবা গ্রামের রিপন মাঝি, করিম উদ্দিন মাঝি, তাঁরাকুপি গ্রামের তৈয়বালি শাহ, সুজন শাহ জানান, ঝড়ে তাদের বসত ঘরের উপর গাছ পরে বিধ্বস্ত হয়। গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও জরুরী বিভাগের চিকিৎসক দেওয়ান আবদুস সালাম জানান, ঘূর্নিঝড়ে গাছ চাপায় প্রয়া ২৫ জন আহত হয়।
গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইসরাত জাহান, ঘূর্নিঝড়ে গৌরনদী উপজেলায় কয়েক হাজার মানুষ বসত ঘর হারিয়েছে। এ ছাড়া আমন, পানবরজ ও সবজির অপুরনীয় ক্ষতি হয়েছে। জরুরী ত্রান হিসেবে ২০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ এক লাক টাকা পাওয়া গেছে। ক্ষয়ক্ষতি নিরুপন কাজ অব্যহত রয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads