• মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭
ads
পাঁচববিবিতে ঘন কুয়াশায় নষ্ট হচ্ছে ধানের বীজতলা

ঘন কুয়াশা ও তীব্র শৈতপ্রবাহের কারনে চলতি মৌসুমের বোরো বীজতলা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ছবিটি শেকটা মাঠ থেকে তোলা

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

কৃষি অর্থনীতি

পাঁচববিবিতে ঘন কুয়াশায় নষ্ট হচ্ছে ধানের বীজতলা

  • পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৭ জানুয়ারি ২০২০

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ঘন কুয়াশা ও তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারনে চলতি মৌসুমের ইরি-বোরো বীজতলা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। গত আমন মৌসুমে আমন ধানের ফলন ভাল হলেও আশানুরুপ দাম না পাওয়ার কারনে এবার আগে ভাগেই ইরি-বোরো বীজতলা তৈরীর কাজটা সেরে ফেলেন কৃষকেরা।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানায়, উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় এবার প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে আসন্ন ইরি-বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে ১ হাজার ২৬৫ হেক্টর জমিতে বোরো বীজতলা তৈরী করেছে। কিন্তু গত কয়েক দিনের ঘন কুয়াশা ও তীব্র শৈত্যপ্রবাহের কারনে ইরি-বোরো বীজতলা নষ্ট হওয়ার ফলে এবার উপজেলায় বোরো চাষাবাদ নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষকরা। এতে কৃষকের বুকভরা আশা ক্রমশঃ হতাশায় নিমজ্জিত হচ্ছে।

কৃষকরা জানান, এ অঞ্চলে সিংহভাগ সময় ঘন কুয়াশার আচ্ছাদনে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে প্রকৃতি। বৈরী আবহাওয়ার কারনে ইরি-বোরো বীজতলা স্যাঁতস্যাঁতে ও বিবর্ণ আকার ধারন করে মরে যাচ্ছে। সালুয়া গ্রামের পবন চন্দ্র বলেন, গত কয়েক দিন ধরে তীব্রশীত আর ঘন কুয়াশায় বীজতলা নষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে। এসব বীজতলার ধানের চারা ইতিপূর্বে একই সময়ে ৫ থেকে ৭ ইঞ্চি লম্বা ও তরতাজা ধারন করলেও টানা শীতের কবলে পড়ে এবার ধানের চারাগাছের উপরিভাগে লালচে আকার ধারন করছে এবং ক্রমানয়ে লালচে আকার ধারনকারী চারা গুলো মরে যেতে শুরু করছে। অনেকেই ইরি-বোরো বীজতলার চারার রক্ষার্থে পলিথিন দিয়ে ঢেকে দিয়ে রাখছেন।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আশরাফুল ইসলাম বলেন, এরকম সমস্যায় থিওভিট নামক ঔষধ বীজতলা স্প্রে এবং সম্ভব হলে রাতে পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষকদের।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads