• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৫
ads
ছয়শ’ টাকায় ছাড়া পেল মরিয়মের গরু!

ঘাস ও ফসলাদি নষ্টের অভিযোগে থানায় আটকে রাখা হয় গরুটিকে

ছবি : বাংলাদেশের খবর

আজব খবর

ছয়শ’ টাকায় ছাড়া পেল মরিয়মের গরু!

  • ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৭ জানুয়ারি ২০১৯

গবাদিপশু আটকে খোয়াড়ে দেওয়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। তবে এবার ঘাস ও ফসলাদি নষ্টের অভিযোগে থানায় জায়গা হয় একটি গরুর। এ ঘটনা ঘটেছে গত শনিবার ঠাকুরগাঁওয়ে। অবশেষে গতকাল রোববার নিশ্চিন্তপুর খোয়াড় থেকে গরুটিকে ফেরত নিয়েছে মালিক বিধবা মরিয়ম বেগম। জানা যায়, গত শুক্রবার বিকালে ঠাকুরগাঁও বিজিবি ক্যাম্পের ভেতরে ঘাস, ফসলাদি নষ্টের অভিযোগে একটি গরুকে আটক করে গত শনিবার রাতে থানায় দিয়েছিল বিজিবি কর্তৃপক্ষ। গরুটির মালিক শহরের শাহপাড়া এলাকার আবদুর রশিদের স্ত্রী মরিয়ম বেগম অনেক খোঁজাখুঁজি করার পরে শনিবার সন্ধান পান। পরে মরিয়ম বিজিবি সদস্যদের ক্যাম্পে হাত-পা ধরে অনুরোধ করে গরুটি ফেরত চায়। বিজিবি সদস্যরা গরুটি মরিয়মকে ফেরত দিতে রাজি হলেও ইজারাদার মাসুদের কারণে ফেরত দেয়নি। বরং বিজিবি ৫০ হাজার টাকার ক্ষতিপূরণ চেয়ে গরুসহ থানায় অভিযোগ দাখিল করে। গতকাল রোববার বিকালে সদর থানা পুলিশ গরুটিকে খোয়াড়ে দিলে মরিময় ৬০০ টাকা ইজারাদার দিয়ে গরুটি ফেরত নিয়েছেন। শনিবার রাতে গরুটিকে ফেরত না পেয়ে মরিয়ম বেগম থানায় ও স্থানীয় নেতাদের কাছে ধরনা দিয়েও কোনো লাভ হয়নি বলে ওই ভুক্তভোগী জানান।

মরিয়ম বলেন, একটি পশুর যদি জ্ঞানশক্তি থাকত তাহলে কি আর অন্যখানে গিয়ে ঘাস ও ফসল নষ্ট করত। আমি বার বার অনুরোধ করার পরে বিজিবি আমার কথা শুনলেও ইজারাদার মাসুদের কারণে ফেরত দেয়নি। তারা আমার কাছে ক্ষতিপূরণের জন্য মোটা অঙ্কের টাকা চেয়েছিল। আমি ওত টাকা না দিতে পারায় বিজিবির এক সদস্যের পা পর্যন্ত ধরেছি কিন্তু অবশেষে গরুটিকে থানায় দেয় তারা। গতকাল বিকালে পুলিশ গরুটি খোয়াড়ে দিলে ৬০০ টাকা দিয়ে ফেরত নিয়েছি। তিন দিন পরে গরুটি ফেরত পাওয়ায় খুব ভালো লাগছে।

ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ জানান, আমি বিষয়টি অবগত নই, বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান তিনি।

ঠাকুরগাঁও থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, বিজিবি কর্তৃপক্ষ ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে গরুটির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছিলেন। বিজিবি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে গরুটিকে নিশিচন্তপুর খোয়াড়ে দেওয়া হয়। নিশ্চিন্তপুর খোয়াড়ের ইজারাদার নাজিমউদ্দিন বলেন, ৬০০ টাকা পরিশোধ করে খোয়াড় থেকে মরিয়ম গরুটিকে নিয়ে গেছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads