• সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
লক্ষ্য দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া

ছবি : সংগৃহীত

বিশ্লেষণ

লক্ষ্য দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া

  • আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া
  • প্রকাশিত ১৪ জুন ২০১৯

 

স্বাধীন বাংলাদেশের সব রেকর্ড ভঙ্গ করে গতকাল বৃহস্পতিবার মহান জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করা হয়। এবারের বাজেটের মূল্য লক্ষ্য সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় সফলভাবে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিঘোষিত দিনবদলের সনদ রূপকল্প-২০১১ বাস্তবায়ন ও উন্নত বাংলাদেশ ’৪১ লক্ষ্য অর্জনকে সামনে রেখেই প্রণীত হয়েছে এবারের এই বিশাল অঙ্কের বাজেট।

মহান সংসদে বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এমপি বলেন, সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে ঘোষণা দেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণে ও আমাদের লাল-সবুজের পতাকাকে বিশ্বের শীর্ষ চূড়ায় নিয়ে যেতে জাতি বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, আমাদের মহান স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন আজ আমাদের দ্বারপ্রান্তে, যা আমাদের জাতীয় জীবনে একটি ঐতিহাসিক দুর্লভ মুহূর্ত। সুখী, সমৃদ্ধ, কল্যাণমুখী ভবিষ্যৎ বিনির্মাণে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ, যা আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারেরও একটি মৌলিক অনুষঙ্গ।

অর্থমন্ত্রী তার এ বাজেটটি দেশবাসীর পক্ষে বিনম্রচিত্তে জাতির পিতা, শহীদ চার জাতীয় নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিশ লাখ শহীদসহ সব বীর মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীনতাযুদ্ধে নির্যাতিত ২ লাখ মা-বোনের প্রতি উৎসর্গ করেন। একই সঙ্গে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, দেশের মানুষের কল্যাণ সাধনায় তার জীবন যেন আরো আত্মোৎসর্গীকৃত ও বিকশিত হয়।

তিনি বলেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটটি দেশ পরিচালনায় বর্তমান সরকারের গত ১০ অর্থবছরের অভাবনীয় অর্জন, যা রূপকথাকেও হার মানায়। এর ওপর ভিত্তি করে এটি রচিত হয়েছে। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী দেশ আজ দ্রুত অর্থনৈতিক প্রগতির পথে অগ্রসরমাণ। বিশ্বের অনেক দেশকেই পেছনে ফেলে আমরা সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জনে সারা বিশ্বের দৃষ্টি কেড়ে নিতে সক্ষম হয়েছি। বাংলাদেশের উন্নয়ন কৌশল আজ বিশ্বের রোল মডেলের স্বীকৃতি লাভ করেছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ইতিহাসের দীর্ঘ পথচলায় আমরা এখন এমন এক ক্ষণে এসে উপনীত হয়েছি, যেখান থেকে পেছনে ফিরে তাকালে দেখা যাবে অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আসার ইতিহাস। সামনে এখনো রয়েছে চ্যালেঞ্জিং পথ-পরিক্রমা। চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার দুরন্ত সাহস রয়েছে বাঙালি জাতির। বঙ্গবন্ধুর প্রদর্শিত ও নির্দেশিত পথেই জাতিকে নিয়ে যাচ্ছেন তার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে যাওয়ার সোনালি যুদ্ধ এখনো অব্যাহত আছে এবং অব্যাহত থাকবে জন্ম-জন্মান্তরে। এক প্রজন্ম থেকে অন্য প্রজন্মে। আমাদের লাল-সবুজের পতাকাটি ঘিরে যত দিন এই পৃথিবীর বুকে লাল-সবুজের বাংলাদেশটি থাকবে তত দিন এই লাল-সবুজের পতাকাটি বিশ্বের সর্বোচ্চ স্থানে মর্যাদার আসনে আসীন রাখবে আমাদের তারুণরা, আমাদের আগামী প্রজন্ম- যারা আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সূর্যসন্তান। মহান মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের উত্তরাধিকার।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads