• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

বিশ্লেষণ

ওয়াসার প্রতিবাদ, প্রতিবেদকের বক্তব্য

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশের খবরে প্রকাশিত ‘ওয়াসার রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি’ শীর্ষক প্রতিবেদনের প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ (ঢাকা ওয়াসা)। গত সোমবার বাংলাদেশের খরবের প্রথম পাতায় প্রধান সংবাদ হিসেবে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়।

ওয়াসার উপপ্রধান জনতথ্য কর্মকর্তা এ এম মোস্তফা তারেকের সই করা প্রতিবাদে বলা হয়েছে, সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদনটি ঢাকা ওয়াসার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্রতিবেদনটি মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

তবে প্রতিবেদনটি প্রকাশের আগে সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক এই কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলেন। তখন তিনি এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছিলেন।

তখন তিনি এও বলেছিলেন, বিষয়টি প্রশাসনিক। প্রতিবেদকের প্রশ্ন, একই কর্মকর্তা মন্তব্য নেওয়ার সময় কিছুই জানেন না বললেও প্রতিবাদে প্রতিবেদনটি ভিত্তিহীন বলা স্ববিরোধী নয় কি?

ওয়াসার প্রতিবাদে সংবাদটি ভিত্তিহীন বলা হয়েছে। যদিও প্রতিবেদনের শেষ দিকে গত কয়েক বছরে ওয়াসার অগ্রগতির কিছু উদাহরণ টানা হয়েছে। প্রতিবেদকের এও প্রশ্ন, তাহলে কি অগ্রগতির অংশটুকুও মিথ্যা; যেহেতু ওয়াসা প্রতিবেদনটি মিথ্যা বলেছে। অবশ্য শেষ দিকে অগ্রগতির সঙ্গে প্রাসঙ্গিক অংশটুকুর পক্ষে সাফাই গেয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। কার্যত প্রতিবাদ করা হয়েছে ওয়াসা এমডির বিষয়ে প্রতিবেদনে উপস্থাপিত অংশের।

প্রতিবেদকের বক্তব্য : সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদনটি সাংবাদিকতার নৈতিকতা, চর্চা ও বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই-বাছাই করে তৈরি করা হয়েছে। প্রতিবেদনটির সূত্রপাত দুর্নীতি দমন কমিশনের-দুদক একটি চিঠি থেকে। দুদক থেকে স্থানীয় সরকার বিভাগে পাঠানো চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় থেকে ঢাকা ওয়াসাকে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। যার একটি কপি বাংলাদেশের খবরের সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদকের হাতে এসেছে। প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট চিঠির তথ্য-উপাত্ত নিয়ে। এখানে প্রতিবেদকের কোনো নিজস্ব ভাষ্য নেই। তা ছাড়া সাংবাদিকতার চর্চা মেনে, বিষয়টি যাচাই-বাছাই করা হয়েছে একাধিক সূত্রে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ হিসেবে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেদক তার অফিসে কথা বলেছেন, যা প্রতিবেদনে উল্লেখ আছে। ওয়াসার এমডি প্রকৌশলী তাকসিম এ খানের সঙ্গেও প্রতিবেদক কথা বলেছেন। যার অডিও রেকর্ড রয়েছে। এমডি তখন একবারও উল্লেখ করেননি, তথ্যগুলো সঠিক নয়।

মোস্তফা তারেক যে প্রতিবাদ পাঠিয়েছেন তাতে এমডির সঙ্গে প্রাসঙ্গিক অংশের প্রতিবাদ করা হলেও এড়িয়ে গেছেন ওয়াসার অন্য দুর্নীতির প্রসঙ্গগুলো।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads