• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে ১৩ কোটি বাংলাদেশি

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে রয়েছে ১৩ কোটি বাংলাদেশি

সংরক্ষিত ছবি

জীব ও পরিবেশ

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে ১৩ কোটি বাংলাদেশি

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০১ জুলাই ২০১৮

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে রয়েছে প্রায় ১৩ কোটি বাংলাদেশি। পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে অর্থনৈতিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্ত হবে বাংলাদেশ। সম্প্রতি বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

গত বৃহস্পতিবার সংস্থাটির প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্তের ঝুঁকিতে থাকা এলাকাগুলোকে ‘হটস্পটস’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এসব এলাকায় গড় তাপমাত্রা বৃদ্ধি এবং বৃষ্টিপাতের তারতম্যের কারণে জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য কয়েক দশকের মধ্যে অর্থনৈতিক ক্ষতি হতে পারে, নেমে যেতে পারে জীবনযাত্রার মানও।

প্রতিবেদনে সম্ভাব্য হটস্পটগুলোর অর্থনৈতিক ভবিষ্যৎ দুইভাবে বিশ্লেষণ করা হয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিভিন্ন দেশ সম্মিলিত উদ্যোগ নিলে কোন এলাকাগুলো এবং কোনো ব্যবস্থা না নেওয়া হলে কোন এলাকাগুলো হটস্পট হতে পারে তা দেখানো হয়েছে প্রতিবেদনে। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতে জলবায়ু পরিবর্তনের অর্থনৈতিক প্রভাব ২০৫০ সালের মধ্যে কতটা পড়বে, আর তা কোন অঞ্চলে কতটা ভয়াবহ হয়ে উঠবে- এ নিয়েই মূলত সমীক্ষা চালিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কার্বন নিঃসরণের পরিমাণ এখনই কমিয়ে আনা না গেলে ক্ষতির মুখে পড়তে হবে দক্ষিণ এশিয়ার ৬ দেশের ৮০ কোটি মানুষকে। এরা বর্তমানে মাঝারি থেকে ভয়াবহ ধরনের হটস্পটগুলোতে বাস করছে। মাঝারি ধরনের হটস্পটে রয়েছে বাংলাদেশের প্রায় ১০ কোটি ৭০ লাখ মানুষ। ভয়াবহ এলাকায় রয়েছে প্রায় ২ কোটি ৬০ লাখ। বিশ্বব্যাংকের ২০১৩ সালের তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৬ কোটি ৩০ লাখ ধরে এ প্রতিবেদন করা হয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকানোর কোনো পদক্ষেপ বাস্তবায়িত না হলে ২১০০ সাল নাগাদ পৃথিবীর গড় তাপমাত্রা বৃদ্ধির হার হবে প্রাক-শিল্পায়ন যুগের চেয়ে ৪ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। আবহাওয়ার গড় পরিবর্তনের কারণে দক্ষিণ এশীয়দের মধ্যে মাথাপিছু জিডিপির দিক থেকে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়বে বাংলাদেশিরা। এ অবস্থা চলতে থাকলে ২০৫০ সাল নাগাদ বাংলাদেশের মানুষের জিডিপি ১৪ দশমিক ৪ শতাংশ কমবে। আর্থিক অঙ্কে যা প্রায় ১৭১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে চট্টগ্রাম বিভাগের বেশিরভাগ এলাকা মারাত্মক ঝুঁকিতে; বরিশাল, খুলনা, ঢাকা, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ মাঝারি ঝুঁকিতে এবং সিলেট, রংপুর বিভাগ মৃদু ঝুঁকির মধ্যে থাকবে। গড় তাপমাত্রা ক্রমশ বাড়তে থাকায় এবং বর্ষা ঋতুর আচরণ বদলে যাওয়ায় বাংলাদেশের নিচু ও উপকূলীয় এলাকা বেশি বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ের ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের এক অর্থনীতিবিদ বলেছেন, জলবায়ু হটস্পটের সঙ্গে পানি সঙ্কট থাকা এলাকাগুলোর একধরনের যোগসূত্র আছে। এ কারণে ৬০ কোটি ভারতীয়র চরম পানি সঙ্কটে পড়ারও আশঙ্কা রয়েছে।

প্রতিবেদনে অবশ্য জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি কমানোর সম্ভাবনাও দেখানো হয়েছে। বলা হয়েছে, সামষ্টিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হলে ঝুঁকিতে থাকা মানুষের সংখ্যা ৮০ থেকে ৩৭ কোটিতে নামিয়ে আনা সম্ভব হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads