• শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
ads
মেঘের রাজ্যখ্যাত ডিম পাহাড় দখলের অপচেষ্টায় মানববন্ধন

মেঘের রাজ্যখ্যাত ডিম পাহাড় দখলের অপচেষ্টায় মানববন্ধন

ছবি : বাংলাদেশের খবর

জীব ও পরিবেশ

মেঘের রাজ্যখ্যাত ডিম পাহাড় দখলের অপচেষ্টায় মানববন্ধন

  • জয়দেব রানা, আলীকদম (বান্দরবান) প্রতিনিধি:
  • প্রকাশিত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বান্দরবানের আালীকদমে থানচি উপজেলা প্রশাসন কতৃক আলীকদম উপজেলার ঐতিহ্যবাহি পর্যটন এলাকা ডিম পাহাড় দখলের অপচেষ্টার বিরুদ্ধে মানববন্ধন,প্রতিবাদ মিছিল ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মরকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে দশটায় আলীকদম প্রেসক্লাবের সামনে যোগাযোগ সড়কে আলীকদম উপজেলা সচেতন নাগরিক মহরের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন ,বান্দরবানের ডিম পাহাড় একটি সুন্দর পর্যটন এলাকা ও মেঘের রাজ্য হিসেবে ইতিমধ্যে সারা বাংলাদেশ ও দেশের বাহিরে পরিচিতি লাভ করেছে।প্রতিদিন অসংখ্য পর্যটক বান্দরবান জেলার এই পর্যটন কেন্দ্রে ঘুরতে আসেন। আলীকদম হয়ে ডিম পাহাড়ের পর্যটন কেন্দ্রে যান অসংখ্য পর্যটক। তাই কিছুদিন ধরে থানচি উপজেলা প্রশাসন তা দখলের নেওয়ার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এর আগে একবার দখলের চেষ্টা করেছিল ,সে সময়ও আলীকদম উপজেলা প্রশাসন তা রুখে দেয়। আলীকদম থানচি সড়ক হওয়ার পর পরেই তৎসময়ের আলীকদম জোন পর্যটকদের আর্কষণ করার জন্য ডিম পাহাড়স্থ সড়কের পাশে বিশ্রামাগার নিমার্ণ করে দেন ও তৎসময় আলীকদম উপজেলা প্রশাসন জঙ্গল পরিষ্কারসহ বিভিন্ন সংস্কার কাজ করেন এবং আলীকদম থানচি সড়কের ডিম পাহাড় এলাকার স্যৌন্দর্য্য দেশ ও দেশের বাইরে তুলে ধরার জন্য শুরু থেকে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,রাজনিৈতক নেতৃবৃন্দ ও উপজেলা প্রশাসন সহ নানা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কাজ করেছিল ও এখনও করছে।তাই সৌন্দয্যের মোহে ডিম পাহাড় দখলের অপচেষ্টা করছে থানচি উপজেলা প্রশাসন।

এসময় বক্তারা আরো অভিযোগ করে বলেন, আলীকদম থানচি সড়কের ২৬ কিরোমিটার পর্যন্ত আলীকদমের অনর্Íগত। স্বাধীনতার আগে ১৯৬৬/৬৭ সালের দিকে একটি মাত্র মুরুং পাড়া “কলিং মুরুং কার্বারী পাড়া”র অবস্থান এই ডিম পাহাড়ে ছিল। এখন ডিম পাহাড় এলাকায় বসবাসকৃত অধিকাংশ মুরুং সম্প্রদায়ের জনসাধারণ আলীকদম উপজেলার প্রশাসনিক সুযোগ সুবিধা গ্রহন কওে থাকেন। এসময় বক্তারা থানচি উপজেলা প্রশাসনের একতরফাভাবে ডিম পাহাড় থানচি উপজেলার অংশ হিসেবে দাবী করাকে অযৌক্তিক ও এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ডিম পাহাড় ও আলীকদম এক অভিন্ন অংশ বলে জানান।

মানববন্ধন শেষে মিছিল সহকারে আলীকদম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সায়েদ ইকবালের মাধ্যমে একটি স্মারকলিপি প্রদান করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান,উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ আয়োজনকারীরা।

এতে আলীকদম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম ,আলীকদম উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মংব্রাচিং মার্মা, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি সমরঞ্জন বড়ূয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দুংরিমং মার্মা, আলীকদম উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিরিন আক্তার , আলীকদম সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নাছির উদ্দিন বিএ,৪নং করুপপাতা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ক্রাতপুং মুরুং,আলীকদম মুরুং কল্যাণ ছাত্রাবাসের তত্ত্বাধায়ক ইয়াংলক মুরুং, আলীকদম উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি শুভ রঞ্জন বড়ূয়া ও সাধারণ সম্পাদক মোঃনাছির উদ্দিন, আলীকদম উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার জিহাদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিউল আলম,আলীকদম উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি সাতুল বড়–য়া ও সাধারণ সম্পাদক মোঃশামশুল আলম প্রমুখ সহ আলীকদম উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী ও আলীকদম উপজেলা সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads