• বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
নওয়াজ শরিফের ১০ বছরের জেল

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির দুর্নীতি-বিরোধী আদালত

ছবি : ইন্টারনেট

এশিয়া

নওয়াজ শরিফের ১০ বছরের জেল

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৬ জুলাই ২০১৮

দুর্নীতির দায়ে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে সাত বছর ও মরিয়মের স্বামী ক্যাপ্টেন সফদারকে এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

লন্ডনে চারটি বিলাসবহুল বাড়ি নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে শুক্রবার নওয়াজকে এ সাজা দিয়েছে আদালত। 

ডন নিউজের খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের অ্যাকাউন্টিবিলিটি কোর্ট আজ শুক্রবার এই রায় ঘোষণা করেন। কারাদণ্ডাদেশের পাশাপাশি নওয়াজের ৮০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড ও মরিয়মের ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা করা হয়েছে।

নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মরিয়ম এখন লন্ডনে অবস্থান করছেন। তারা যাতে দেশে ফিরে আদালতে দাঁড়িয়েই এই মামলার রায় শুনতে পারেন, তার জন্য রায় ঘোষণা এক সপ্তাহ পিছিয়ে নিতে আর্জি জানিয়েছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। আর্জিতে শরিফ জানিয়েছিলেন, তার স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ গুরুতর অসুস্থ হয়ে লন্ডনে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তাই তাদের দেশে ফিরে রায় শোনার জন্য এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হোক। কিন্তু সেই আর্জি শুক্রবার খারিজ করে দেয় পাকিস্তান আদালত। 

চলতি বছরের এপ্রিলে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট দুর্নীতি সংক্রান্ত একটি মামলার ঐতিহাসিক রায়ে জানায়, আর কোনো দিন প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। এমনকি, পাকিস্তান পার্লামেন্টের সদস্য হওয়ার জন্য আর দাঁড়াতে পারবেন না নির্বাচনেও।

পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাসে ওই রায় একটি নতুন অধ্যায়ের সৃষ্টি করে।

আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তির মালিকানার দায়ে গত জুলাইয়ে পাকিস্তানের শীর্ষ আদালতের রায়ে বরখাস্ত হওয়ার পর ইস্তফা দিতে বাধ্য হয়েছিলেন তৎকালীন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। কিন্তু সেই সময় যেটা স্পষ্ট হয়নি, তা হল- কত দিনের জন্য বরখাস্ত হতে হল ৬৭ বছর বয়সী শরিফকে। তা কি সাময়িক নাকি সারা জীবনের জন্য?

পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ে সেই ধোঁয়াশা কেটে যায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads