• বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
গুহায় আটকে ১৫ বছর ধরে যৌন নির্যাতন

পুলিশ ২৮ বছর বয়সী ওই নারীকে উদ্ধার করেছে

সংরক্ষিত ছবি

এশিয়া

গুহায় আটকে ১৫ বছর ধরে যৌন নির্যাতন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৯ আগস্ট ২০১৮

ইন্দোনেশিয়ায় সুলাওয়েশির এক নারীকে ১৫ বছর ধরে গুহার মধ্যে আটকে রেখে যৌন নির্যাতন চালিয়েছে এক ওঝা। পুলিশ ২৮ বছর বয়সী ওই নারীকে উদ্ধার করেছে। উদ্ধার পাওয়া ওই নারী জানিয়েছেন, তার সঙ্গে থাকা জিন তাড়ানোর নাম করে তাকে ওই গুহায় আটকে রাখা হয়েছে। আলজাজিরা, সিএনএনের খবর।

পুলিশ জানিয়েছে, ২০০৩ সালে ১৩ বছর বয়সী এক কিশোরীকে তার পরিবার চিকিৎসার জন্য ওই ওঝার কাছে নিয়ে গিয়েছিল। ওই মেয়ের সঙ্গে জিন আছে এমন কথা বলে শিশুটিকে তার কাছে রেখে দেয় ওই ওঝা। সে বছরই ওই কিশোরী নিখোঁজ হয়। ওঝার কাছে মেয়েটির পরিবার তার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান, সে কাজের উদ্দেশে জাকার্তায় চলে গেছে।

কয়েক বছর ধরেই তাদের পরিবারের লোকজন তাকে খুঁজে বের করা চেষ্টা করেন। কিন্তু তাকে কোথাও পাওয়া যায়নি। একটি প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে পুলিশ গত রোববার কেন্দ্রীয় সুলাওয়েশির গালুমপাং এলাকায় যায়। সেখানে তারা একটি গুহার পাথরের পেছনে একটি ছোট্ট জায়গার মধ্যে ওই নারীকে দেখতে পায়।

তোলিতোলি শহরের পলিশ প্রধান এম ইকবাল আলকুদুসী বলেন, ওঝার বাড়ি থেকে কাছেই ওই নারীকে বন্দি করে রাখা হয়েছিল। মেয়েটির বয়স যখন মাত্র ১৩ বছর তখন থেকেই ওই লোকটি মেয়েটিকে ধর্ষণ করে আসছে। সে তার সঙ্গে জিন আছে বলেও মেয়েটিকে ভয় দেখিয়েছে। ওই নারী জানিয়েছেন, রাতের বেলা জোর করে লোকটি তার বাড়ি নিয়ে যেত আর দিনের বেলা ছোট্ট কারাগারের মতো গুহায় রেখে দিত।

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, জিন সবকিছু দেখছে এমন ভয় দেখিয়ে মেয়েটিকে ব্রেন ওয়াশ করা হয়েছে এবং সে যেন পালিয়ে না যায় ও লোকজনের সঙ্গে দেখা না করে সেজন্য ভয় দেখানো হয়েছে। দোষী সাব্যস্ত হলে ওই ব্যক্তির ১৫ বছর পর্যন্ত সাজা হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads