• সোমবার, ১৮ মার্চ ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৪
ads
আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্র আন্তরিক : তালেবান

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্র আন্তরিক

ছবি : ইন্টারনেট

এশিয়া

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্র আন্তরিক : তালেবান

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহারে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আন্তরিক বলে মনে করছে তালেবান। গত শুক্রবার এমন মনোভাবের কথা জানিয়েছেন তালেবান মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ। কাতারে তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ছয় দিনের বৈঠক শেষে এক হোয়াটসঅ্যাপ বার্তায় তিনি বলেন, অবশেষে ১৭ বছরের সংঘাত বন্ধে আলোচনা সঠিক পথে এগোচ্ছে। খবর বিবিসি ও আলজাজিরা।

উভয় পক্ষ একটি চুক্তির ব্যাপারে সমঝোতায় উপনীত হয়েছে। এটি যদি হয় এবং ট্রাম্প প্রশাসন সততার সঙ্গে তা মেনে চলে তাহলে আল্লাহর রহমতে শিগগিরই আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের দখলদারিত্ব অবসানের ব্যাপারে আশাবাদী। যুক্তরাষ্ট্র যদি সেনা প্রত্যাহার করে তাহলে আফগানিস্তানে ইসলামি শাসন ব্যবস্থা কায়েমের পথ খুলে যাবে।

তালেবান এককভাবে ক্ষমতা দখল করতে চায় বলে যে অভিযোগ উঠেছে তা নাকচ করে মুজাহিদ বলেন, কাবুল সরকার সহযোগিতা করলে কোনো যুদ্ধ কিংবা দ্বন্দ্ব হবে না। এদিকে হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে।

ট্রাম্প প্রশাসনও আর চায় না দেশটিতে আজীবন যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক উপস্থিতি ধরে রাখতে। যুদ্ধবিরতি ও সেনা প্রত্যাহারের সময় নিয়ে আরো আলোচনা প্রয়োজন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক যুক্তরাষ্ট্রের এক কর্মকর্তা জানান, আমাদের লক্ষ্য হলো দেশটিতে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। শান্তি স্থাপনের পর গঠিত সরকারের সঙ্গে ভবিষ্যৎ অংশীদারিত্ব চাই। নিজেদের সুনাম প্রতিষ্ঠা করে আফগানিস্তান ছাড়তে চাই। তবে তালেবানের সুস্পষ্ট যুদ্ধবিরতির ঘোষণা ছাড়া আমাদের সেনারা  আফগানিস্তান ছাড়বে না।

কাতার বৈঠক শেষে উভয় পক্ষ সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও সমঝোতার গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যুদ্ধবিরতি নিয়ে তালেবান আফগান সরকারের সঙ্গে কোনো আলোচনায় বসতে রাজি নয়। তালেবান মনে করে, বর্তমান আফগান সরকার যুক্তরাষ্ট্রের পুতুল মাত্র। যুক্তরাষ্ট্রের অনুমোদন ছাড়া তারা কোনো সিদ্ধান্ত দিতে অপারগ। এমন সরকারের সঙ্গে বৈঠক করার চেয়ে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গেই আলোচনা করাকে তারা শ্রেয় মনে করে। চলতি মাসের শেষের দিকে কাতারের রাজধানী দোহায় আবারো বৈঠক করবে তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্র।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads