• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৫
ads
১৬ জুলাই ‘ব্যাংকিং দিবস’ ঘোষণার দাবি

সংগৃহীত ছবি

ব্যাংক

১৬ জুলাই ‘ব্যাংকিং দিবস’ ঘোষণার দাবি

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১৬ জুলাই ২০১৯

আজ ১৬ জুলাই দেশের ব্যাংকিং খাতের একটি ঐতিহাসিক দিন। ১৯৭৩ সালের এই দিন যুদ্ধবিধ্বস্ত সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের মুদ্রা ব্যবস্থা ও ব্যাংকিং খাত পুনর্গঠনের ওপর একটি ঐতিহাসিক ক্রোড়পত্রে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি যুগান্তকারী বাণী প্রকাশিত হয়।

আধুনিক গণমুখউ ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠায় জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও ব্যাংকিং খাত পুনর্গঠনে তার অসামান্য অবদানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনে ১৬ জুলাই দিনটিকে ‘ব্যাংকিং দিবস’ ঘোষণা ও ব্যাংকিং খাতে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের দাবি জানিয়েছেন বাণীর সংগ্রাহক ও ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ ব্যাংক’ প্রামাণ্য গ্রন্থের গবেষক নজরুল ইসলাম বশির।

নিজ স্বাক্ষর ও ছবিযুক্ত এই দুর্লভ বাণীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উল্লেখ করেন, ‘উন্নতিশীল দেশসমূহের অগ্রগতির যে কোনো প্রচেষ্টায় আধুনিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা অপরিহার্য। সুষ্ঠু ও সবল ব্যাংকিং ব্যবস্থা যে কোনো জাতির সুষ্ঠু ও বেগবান অর্থনীতিরই পরিচায়ক।

হানাদার পাকিস্তানিরা আত্মসমর্পণের পূর্বে দেশের ব্যাংকসমূহ তথা গোটা অর্থনীতিকে যে অবস্থায় রেখে গিয়েছিল, আজ  তা অশেষ বাধা-বিপত্তির বেড়াজাল কাটিয়ে উঠে আবার আপন গতি ফিরে পেয়েছে। দেশের মুদ্রা ও আর্থিক ব্যবস্থা উজ্জীবিত হয়েছে নতুন সঞ্জীবনী শক্তিতে এটি নিশ্চয়ই আশার বিষয়।

আপন সম্পদের ওপর নির্ভর করে স্বয়ংসম্পূর্ণ অর্থনীতি গড়ে তোলাই আমাদের লক্ষ্য। আজ আমাদের সকলকে জাতীয় পুনর্গঠনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করতে হবে— যার ফলে গড়ে উঠবে স্বয়ংসম্পূর্ণ অর্থনীতি ও সঠিক উন্নত ব্যাংকিং ব্যবস্থা।’ -শেখ মুজিবুর রহমান

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads