• রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
ads

বলিউড

কষ্ট পেলেন আলিয়া

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৭ আগস্ট ২০১৯

আলিয়ার ক্যারিয়ারে একের পর এক যোগ হচ্ছে সফলতার নতুন অধ্যায়। এর মধ্যে সালমান খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন বলে বেশ উজ্জীবিত ছিলেন আলিয়া। কিন্তু হঠাৎ করে ঘোষণা এলো আগামী বছরের ঈদে মুক্তি পাচ্ছে না সঞ্জয় লীলা বানসালি পরিচালিত, সালমান খান ও আলিয়া ভাট অভিনীত ‘ইনশাআল্লাহ’। আর এতেই কষ্ট পেয়েছেন আলিয়া ভাট।

এ ছবিটি নিয়ে যারপরনাই উচ্ছ্বসিত ছিলেন আলিয়া। অথচ নতুন এ খবর শুনে প্রথমেই বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না। অবশ্য সালমান খান প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ২০২০ সালের ঈদে তার আরেকটি চলচ্চিত্র মুক্তি পাবে।  কিন্তু এ ছবির ব্যাপারে সালমান পরিষ্কার করে কিছুই বলেননি।

প্রথমবারের মতো সালমান খান ও আলিয়া ভাটের জুটি বাঁধার খবরে খুব উচ্ছ্বসিত হয়ে পড়েছিলেন ভক্তরা। আলিয়া নিজেও খুশি ছিলেন সালমান খানের সঙ্গে অভিনয় করবেন বলে। তবে এহেন সিদ্ধান্তে আলিয়া অনেকটাই অবাক হয়েছেন।

যদিও আলিয়া ভাট ‘কলঙ্ক’ ছবিতে অভিনয় করে ব্যাপক প্রশংসা পেয়েছেন। বলা হচ্ছে, সূক্ষ্ম অনুভূতি প্রকাশের ক্ষেত্রে বেশ পারদর্শী তিনি।

দিন কয়েক আগেই ২৬ বছরে পা দিলেন আলিয়া ভাট। সম্প্রতি ‘ফিল্মফেয়ার’ আর ‘বিবিসি এশিয়ান নেটওয়ার্ক’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আলিয়া তার শিল্প ও ব্যক্তিসত্তা নিয়ে কথা বলেছেন। তাকে জিগ্যেস করা হয়েছিল তার অপছন্দের সহকর্মী কে?  জবাবে আলিয়া

বরুণ ধাওয়ানের নাম বলেছেন। তিনি বলেন, ‘ও খুব খুঁতখুঁতে। চরিত্র নিয়ে খুব বেশি নাড়াচাড়া করে। আর সেটা সেটের অন্যদের মধ্যেও ছড়িয়ে দেয়। যেমন আমাদের জীবনের প্রথম শট, ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবির ‘রাধা’ গানের জন্য সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, বরুণ ধাওয়ান আর আমাকে একবার ঘুরে হাসতে হবে। এটুকুই। প্র্যাকটিস শট। সেই প্র্যাকটিস শটের জন্যও বরুণ অনেকবার প্র্যাকটিস করেছে- সে কোন হাসিটা দেবে। এভাবে, নাকি ওভাবে। তার কাছে কোনোটাই ঠিক পছন্দ হচ্ছিল না। সেই শট ১৪ বার নেওয়া হয়েছে শুধু ওর জন্য।’

টুইটার বা ইনস্টাগ্রামে আলিয়া ফলো করেন ঋষি কাপুরকে। যেখানে সবাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রল নিয়ে বিরক্ত হয়, সেখানে আলিয়া ট্রল বিষয়টি খুব উপভোগ করেন। তিনি বলেন, ‘আমার তো মজাই লাগে। আমি দেখি, হাসি। ভুলে গিয়ে কাজে মন দিই। এই যেমন একজন লিখেছেন, আজ আইনস্টাইনের জন্মদিন। কাল আলিয়া ভাটের। একটা দিন কত পার্থক্য গড়ে দেয়! দেখলাম, মজা পেয়েছি, হেসেছি। স্ক্রল করে পরের পোস্টে চলে যাই।’

ক্যারিয়ারে কোনো কিছু নিয়ে আপসোস নেই আলিয়ার। কাজ ছাড়া একেবারেই থাকতে পারে না এ অভিনেত্রী। আলিয়া বলেন, ‘আমি ছয় দিনের বেশি অভিনয় ছাড়া থাকতে পারি না। এক সপ্তাহও না। একসময় পর্দায় জুহি চাওলা, কারিশমা কাপুর, কারিনা কাপুর, প্রীতি জিনতা, মাধুরী দীক্ষিতদের দেখতাম আর ‘গালি বয়’ ছবির গানের মতো বলতাম, ‘আপনা টাইম আয়েগা (আমার দিন আসবে)।’ আর এখন আমার সময়। আমাকে তো কাজ করতেই হবে। আমি প্রতিদিন কাজে যাই। আমার মনে হয়, কাজে না, পার্টিতে যাচ্ছি। প্রতিটি মুহূর্তে আমি অনুভব করি, আমি খুব ভাগ্যবান আর খুব পরিশ্রমী। আমার মনেই পড়ে না গত বছর কখন ঘুমিয়েছি।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads