• মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads

বলিউড

প্রেম করছেন সোনাক্ষী

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২২ অক্টোবর ২০১৯

বলিউডের অন্যতম আলোচিত অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা। সালমান খানের নায়িকা হয়ে ‘দাবাং’ ছবির মাধ্যমে অভিষেক হয় তার।

এরই মধ্যে শত্রুঘ্ন সিনহার মেয়ে সোনাক্ষী নিজের অভিনয় ও নাচের গুণে দর্শকের মন জয় করেছেন। অসংখ্য ভক্ত রয়েছে নায়িকার। বরাবরই নিজের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলেন না সোনাক্ষী।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সরব তিনি। তবে সেখানেও ব্যক্তিগত জীবনকে একটু রেখেঢেকে রাখেন। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, একজন হ্যান্ডসাম পুরুষের সঙ্গে বেশ জমিয়ে প্রেম করছেন সোনাক্ষী। শুধু প্রেমই নয়, শিগগির তারা বিয়েও করবেন।

সম্প্রতি ‘নোটবুক’ নামে একটি ছবি মুক্তি পায়। সালমান খানের প্রযোজনায় সেই ছবিতে বলিউডে অভিষেক ঘটে মনীশ বেহলের মেয়ে প্রনুতন ও জাহির ইকবালের। সোনাক্ষী নাকি জাহিরের সঙ্গেই চুটিয়ে প্রেম করছেন। দীর্ঘদিন একে অপরের সঙ্গে ডেট করছেন। একটি সাক্ষাৎকারে সোনাক্ষী অবশ্য স্বীকারও করেন শিগগির বিয়ে করবেন তিনি।

ঠিক তখন থেকেই জল্পনা আরো বাড়তে থাকে। বলিউডের হ্যান্ডসাম অভিনেতাদের তালিকায় প্রথম ছবি করেই ঢুকে পড়েছেন জাহির। সোনাক্ষী-জাহিরকে বিভিন্ন সময় একসঙ্গে দেখা গেছে।

এদিকে সোনাক্ষীকে মোটা বলে বিপাকে পড়েছেন অক্ষয়। ‘চুপসানো আমের মতো রুগ্ণ নয়, মোটাসোটা হিরোইনই আমার পছন্দ’, একটি সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা অক্ষয় কুমার। তার ভাষায়, আমি পাঞ্জাবি, ‘হরি ভরি’ হিরোইনই আমার পছন্দ, ‘চুসা হুয়া আম’ যেন না মনে হয়।

 

‘খিলাড়ি’র এই মন্তব্য ছিল সোনাক্ষী সিনহাকে নিয়ে, আর তা নিয়েই সমালোচনা ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়। যদিও এই মন্তব্যটি তিনি করেছিলেন ২০১২ সালে। কিন্তু আচমকা সেই পুরনো মন্তব্য ঘিরে এ সময়ে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক।

 

দিনকয়েক আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হয় সেই সাক্ষাৎকারের ভিডিওটি, তারপরই তা ভাইরাল। নেটিজেনদের মতে, শরীর নিয়ে কটূক্তি ও মহিলাদের সম্পর্কে অপমানজনক মন্তব্য করেছেন অক্ষয় কুমার।

শেষ পর্যন্ত অক্ষয়কে বাঁচাতে মাঠে নামেন খোদ সোনাক্ষীই। জানিয়ে দেন, তার এ মন্তব্যে যখন আমারই কোনো সমস্যা নেই, তখন বাকিদের এত সমস্যা হচ্ছে কেন? তিনি আরো জানান, ট্রোলডকে গুরুত্ব দেওয়ার কোনো মানে নেই। আমার অক্ষয় কুমারের সঙ্গে খুব ভালো সম্পর্ক। আমরা ভালো বন্ধু, পেশাগত সম্পর্কও খুব ভালো।

বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে সাইজ জিরো হিরোইন অনেক রয়েছেন। পাশাপাশি সোনাক্ষী সিনহার মতো নায়িকারাও রয়েছেন, যারা সাইজ জিরো না হয়েও সিনেমার দর্শককে মাতিয়ে রেখেছেন। তবে সোনাক্ষী সিনেমায় আসার আগে এমন চেহারার ছিলেন না। দৃশ্যতই মোটা ছিলেন বলা যায়। চিরকালীন ইতিহাসে স্থান পেয়েছে এই বলিউড চরিত্রগুলো। বিকিনি পরেই নতুন রেকর্ড গড়লেন সানি লিওনি! তবে তার মোটা থেকে রোগা হওয়ার কাহিনী অনেককে অনুপ্রেরণা জোগাবে সন্দেহ নেই।

সম্প্রতি একটি ইন্টারভিউতে সোনাক্ষী জানিয়েছেন, ছোটবেলা থেকেই তিনি মোটা ছিলেন। ফলে সিনেমায় অভিনয়ের কথা কখনো ভাবেননি তিনি। ১৬ বছর বয়সে একদিন তিনি অনুভব করেন সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করতে গিয়ে তার দম কমে আসছে। তখনই তিনি ঠিক করেন তাকে রোগা ও ফিট হতে হবে। তারপর থেকেই সোনাক্ষীর মেকওভার শুরু হয়। বলিউড তারকাদের অদ্ভুত সব ভয়ের কারণ ছোট শহরের অখ্যাত মুখ থেকে বলিউডের বিখ্যাত তারকা হয়েছেন এরা। এরপর হঠাৎ একদিন সালমান খান এসে সোনাক্ষীকে জানান তাকে দাবাং সিনেমায় অভিনয় করতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো সুযোগও তাকে দেওয়া হয়নি। ভাইজান শুধু জানিয়েছিলেন, সোনাক্ষীকে তার সিনেমায় তিনি চান। তা শুনেই ফের আরো রোগা হওয়া শুরু করেন সোনাক্ষী। সিনেমায় ফিট দেখানোর জন্য সোনাক্ষীকে অন্তত ৩০ কিলো ওজন ঝরাতে হতো। সেজন্য একদিকে যেমন তিনি জিম শুরু করেন, তেমনি আরেকদিকে কড়া ডায়েট করতে থাকেন। পরিমাণে কম খাওয়া, বারবার খাওয়া, দৈনিক শরীরচর্চা, দিনে দুবার জিমে যাওয়া, কম কার্বোহাইড্রেট ও বেশি প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পাশাপাশি সোনাক্ষী রোগা হওয়ার জন্য যোগব্যায়াম ও অন্যান্য শরীরচর্চা করেছেন। সারাদিনে বারবার পানি খেতেন সোনাক্ষী। সন্ধ্যা ৬টার পর কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার মুখে তুলতেন না। ডায়েটে দানাশস্য, তাজা ফল, সবজি ইত্যাদি খেয়েছেন সোনাক্ষী। এরপর রোগা হয়ে গেলেও এখনো শরীরচর্চা ও ডায়েট তালিকা অনুসরণ করে চলেছেন সোনাক্ষী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads