• বৃহস্পতিবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯, ৪ মাঘ ১৪২৪

বাজেট

এডিবির ৭ প্রকল্পে ধীরগতি 

ফেরত যাবে অর্থ

  • জাহিদুল ইসলাম
  • প্রকাশিত ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮

নগর উন্নয়ন অবকাঠামো প্রকল্প নেওয়া হয় ২০১০ সালে। চলতি বছর মেয়াদ শেষ হলেও প্রকল্পের অগ্রগতি ৮১ শতাংশ। প্রকল্পটিতে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) ১২ কোটি ডলারের বরাদ্দের বিপরীতে ব্যয় হয়েছে ১০ কোটি ৫০ লাখ ডলার। ধীর গতির কারণে বাংলাদেশ এ প্রকল্পে হারাচ্ছে দেড় কোটি ডলার।

এডিবির অর্থায়নে চলমান এমন সাতটি প্রকল্পে চলছে ধীর গতি। বছর খানেকের মধ্যে শুরু হয়নি কাজ। কিছু প্রকল্প থমকে আছে মাঝপথে। শেষের দিকে লক্ষ্য পূরণ হচ্ছে না কিছু প্রকল্পের। এমন সাত প্রকল্প নিয়ে ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে উঠে এসেছে এমন হতাশার কথা। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মুহাম্মদ আলকামা সিদ্দিকী বাস্তবায়নকারী সস্থার প্রতিনিধিদের নিয়ে গতকাল রোববার এডিবির সঙ্গে বৈঠকটি করেন।

আলকামা সিদ্দিকী জানান, বিদেশি সহায়তার অডিট সংস্থা ফাবা অনুযায়ী কিছু প্রকল্পের অর্থ ছাড়ে ধীর গতি রয়েছে। প্রকল্পে ধীর গতি আর অর্থ ছাড়ের উপায় বের করতে সভা ডাকা হয়েছে। আলোচনায় বলা হয়েছে, নগরের জনগণের পরিবেশ ও সেবা উন্নয়নে প্রকল্প নেওয়া হয় ২০১৬ সালে। ২০২০ সাল প্রর্যন্ত মেয়াদ থাকলেও এতে ব্যয় হয়েছে মাত্র ৭৬ শতাংশ অর্থ।

প্রকল্পটির পরিচালক জানিয়েছেন, কার্যপরিধি পরিবর্তন আর লোকবল সঙ্কটে ২০২০ সালেও এর কাজ শেষ হবে না। সভাপতি এ বিষয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। ভবিষ্যতে এমন যেন না হয় এ বিষয়ে সতর্কতা জারি করেছেন। নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করার বিষয়ে এডিবিতে পরিকল্পনা পাঠানোর সুপারিশ করা হয়েছে।

২০১১ সালে শুরু হওয়া পার্বত্য অঞ্চলের দ্বিতীয় গ্রামীণ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ এ পর্যন্ত শেষ হয়েছে ৬৮ দশমিক ৬৩ শতাংশ। প্রার্বত্য অঞ্চলের দুর্গম পরিবেশের দোহাই দিয়ে পার পাচ্ছেন এ প্রকল্পের পরিচালক। প্রকল্পে এলজিইডির অংশে ধীর গতির কারণে বাস্তবায়ন পিছিয়ে যাবে বলে আশঙ্কা পরিচালকের। এ বিষয়েও দ্রুত নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। প্রকল্পটির সুফল দেখতে সরেজমিন পরিদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে এডিবি।

চট্টগ্রাম পার্বত্য এলাকার উন্নয়নে সবচেয়ে বেশি দৈন্যদশা এলজিইডি অংশের। ২০১১ সালের এ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি অর্ধেক। শুরুতেই দুই বছর বিলম্ব হওয়ায় প্রকল্পে অর্থ ছাড় হয়নি। ভূমি অধিগ্রহণ, পরামর্শক নিয়োগে বিলম্ব ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে কাজ বিলম্বিত হয়েছে জানিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক।

২০১৪ সালের ঢাকায় পরিবেশসম্মত পানি সরবরাহ প্রকল্পে এ পর্যন্ত অগ্রগতি ৮ দশমিক ৮ শতাংশ। ২০২২ সালে প্রকল্পের কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে এডিবি।

নগর সুশাসন ও অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে এ পর্যন্ত ব্যয় হয়েছে ৭৫ শতাংশ অর্থ। ২০১৪ সালের এ প্রকল্পের কাজ ২০২১ সালে শেষ করা প্রায় অসম্ভব।

২০১০ সাল থেকে চলা অংশগ্রহণমূলক ছোট আকারের পানি ব্যবস্থা প্রকল্পেও চলছে ধীর গতি। এবার প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলেও অগ্রগতি ৮৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এ প্রকল্পের অর্থও এডিবিতে ফেরত যাবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads