• সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭

ক্যাম্পাস

রাবি ভিসির বাসভবনের পর এবার প্রশাসন ভবনে তালা

  • রাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১২ জানুয়ারি ২০২১

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভিসি অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের বাসভবনের প্রধান ফটকের তালা খুলে দিয়ে প্রশাসন ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে সাবেক ও বর্তমান ছাত্রলীগের চাকরিপ্রত্যাশী নেতাকর্মীরা।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সেখানে অবস্থান নেয় তারা। এতে অবস্থানরত চাকরিপ্রত্যাশী ছাত্রলীগ নেতাদের একটি প্রতিনিধি দলকে প্রশাসনের সাথে আলোচনার আহ্বান জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান।

জানা গেছে, প্রশাসন ভবনে তালা দেওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা, অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. একেএম মোস্তাফিজুর রহমান আল আরিফ ও প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমানসহ ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আলোচনায় বসেছে। এর মধ্যে আছেন রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইলিয়াছ হোসেন, স্বপন আহমেদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ রানা, বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি মাহফুজ আল আমিন ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রাসেল।

এ বিষয়ে অবস্থান নেয়া রাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহাফুজ আল-আমিন জানান, যতক্ষণ পর্যন্ত কোনো একটা সমাধান না আসবে, আমরা আশ্বাস না পাওয়া পর্যন্ত এখানে অবস্থান নিবো।

ভিসির বাসভবন খুলে দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক মারা গেছেন। ভিসি মর্মাহত, উনি জানাযায় যেতে পারেন। তাই মানবিক বিবেচনায় আমরা সেখান থেকে সরে এসেছি।

এ প্রসঙ্গে রাবি প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, আমরা তাদের আলোচনার জন্য ডেকেছি বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধানের জন্য। এখানে নিয়োগ চালুর কোন বিষয় নেই।

এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় ভিসির বাসভবনের সামনে চাকরি প্রত্যাশী ও রাবি ছাত্রলীগের সাবেক নেতা সাদেকুল ইসলাম স্বপন এবং রাবি ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির সভাপতি গোলাম কিবরিয়া এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ইলিয়াছ হোসেনের নেতৃত্বে ৬ জনের একটি প্রতিনিধিদল ভিসির অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের বাসভবনে সাক্ষাত করতে যান। তবে ভিসি বিশ্রামে থাকায় তিনি ছাত্রলীগ নেতা কর্মীদের সাথে দেখা করেননি। ভিসি তাদের চাকরি নিশ্চিতের বিষয়ে আস্বস্ত না করলে বাহিরে এসে রাত সাড়ে নয়টায় তারা বাসভবনে প্রধান গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন। এতে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন ভিসি, প্রোভিসি, প্রক্টরসহ প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা। সেই সাথে চাকরিপ্রত্যাশী ছাত্রলীগের নেতারা সারারাত ধরে প্রধান ফটক অবরুদ্ধ করে রাখেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads