• বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৬

শিশু

নিউমোনিয়া প্রতিরোধে বুকের দুধ খাওয়াতে হবে

  • প্রকাশিত ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

ডা. আবু সাঈদ শিমুল

 

 

বরষার কারণে আর্দ্র আবহাওয়ায় অনেক শিশুই নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। একটু সচেতন হলেই এই রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে আগে নিউমোনিয়ার লক্ষণগুলো সম্পর্কে জানতে হবে। দুই মাসের কম বয়সী শিশুদের শ্বাস নেওয়ার হার মিনিটে ৬০ বারের বেশি, দুই মাস থেকে ১২ মাস বয়সী শিশুদের মিনিটে ৫০ বারের বেশি এবং ১২ মাস থেকে পাঁচ বছর বয়সী শিশুর মিনিটে ৪০ বারের বেশি শ্বাস-প্রশ্বাস নিলে তাকে শ্বাসকষ্ট বলা হয়। কাশি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট, দ্রুত নিঃশ্বাস এবং এর প্রতিক্রিয়ায় পাঁজরের নিচের অংশ ভেতরের দিকে দেবে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণ প্রকাশ পায়। যে কোনো রোগের মতো নিউমোনিয়া প্রতিরোধ করাটাও বেশি জরুরি। এতে শিশুর কষ্ট লাঘব হবে। শিশুর নিউমোনিয়া প্রতিরোধে সবার আগে বুকের দুধ খাওয়ানো নিশ্চিত করতে হবে। জন্মের পর এক ঘণ্টার মধ্যে শিশুকে শালদুধ দিন এবং ছয় মাস পর্যন্ত শুধু বুকের দুধ পান করান। বারবার হাত ধোবেন, বিশেষ করে শিশুকে কোলে নেওয়ার আগে। ঘরে, বিশেষ করে শিশুর সামনে ধূমপান করবেন না। রান্নাঘর ও শোবার ঘরের দরজা-জানালা খুলে রাখুন, যাতে করে রান্নার ধোঁয়া ঘরে আটকে না থাকে। এক বছরের মধ্যে সময়মতো শিশুকে সব টিকা, বিশেষ করে নিউমোনিয়ার টিকা দিন। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত শিশু খাবার ও পানি যেন পরিপূর্ণভাবে পায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। যারা বুকের দুধ খায়, তাদের বুকের দুধ কোনোমতেই বন্ধ করা যাবে না। এর সঙ্গে জ্বরের জন্য প্যারাসিটামল এবং যথোপযুক্ত অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে হবে। সুস্থ হয়ে গেলেও অ্যান্টিবায়োটিকের পুরো কোর্স শেষ করতে হবে। এজন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী শিশুকে ওষুধ সেবন করাবেন, ভালো থাকুন।

 লেখক : শিশু বিভাগ, ঢাকা মেডিকেল কলেজ

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads