• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
বাজারে সবজির দাম আকাশচুম্বী

বাজারে সবজির দাম আকাশচুম্বী

সংরক্ষিত ছবি

পণ্যবাজার

বাজারে সবজির দাম আকাশচুম্বী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১১ আগস্ট ২০১৮

বাজারে বেশ কিছু সবজির দাম বেড়েছে। এক সপ্তাহ আগে যেসব সবজি ৪০ টাকা দরে পাওয়া যেত, সেসব এখন বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি দামে। কারণ হিসেবে বর্ধিত পরিবহন ভাড়াকে দায়ী করছেন বিক্রেতারা। এ ছাড়া বাজারে এখনো বাড়তি রয়েছে ডিম, পেঁয়াজ, মাছ ও সরু চালের দাম।

গত সপ্তাহে নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় যান চলাচল কম ছিল। সে অচলাবস্থা কেটে গেলেও সরবরাহ ব্যবস্থার বাড়তি চাপের সুযোগ নিয়ে পণ্য পরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন পরিবহন মালিকরা- এমন দাবি পাইকারি বাজার ও আড়তের ব্যবসায়ীদের। গতকাল শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেগুনের দাম গত সপ্তাহের তুলনায় ২০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। এ ছাড়া করলার দামও বেড়ে হয়েছে ৮০ টাকা। অপরদিকে বাজারে আগাম আসা শিমের দাম শত পেরিয়ে। আর প্রতি পিস বাঁধাকপি আকার ভেদে ৩০ থেকে ৬০ টাকা এবং ফুলকপি ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

একইভাবে দাম বেড়ে প্রতি কেজি শসা বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকা, টমেটো ৯০ থেকে ১০০, ঢেঁড়স ৪০, পটল ৪০-৫০, বরবটি ৬০ এবং কাঁকরোল বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা। অপরদিকে কাঁচামরিচের দাম কিছুটা কমে বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়। তবে বেড়েছে আলুর দাম। বাজারে ২৫ টাকার নিচে আলু মিলছে না।

এদিকে অনেক বাজারে ব্রয়লার মুরগির দাম আগের থেকে কমে বিক্রি করতে দেখা গেছে। বাজারে এখন প্রতি কেজি মুরগির দাম ১৪০ টাকা, যা আগে ১৬০ টাকা ছিল। ব্রয়লারের দাম কমলেও লেয়ার মুরগির দাম আবার বেড়েছে। প্রতিকেজি লেয়ার মুরগি ২৪০ থেকে ২৫০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে। তবে গরুর মাংস ও খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই।

আসন্ন কোরবানির ঈদকে ঘিরে কমছে না পেঁয়াজের ঝাঁজ। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতিকেজি আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৫ টাকা। দাম বাড়ার তালিকায় আরো রয়েছে আদা। রাজধানীর খুচরা বাজারে এখন প্রতিকেজি আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, আর দেশি পেঁয়াজ কিনতে গুনতে হবে ৬০ টাকা।

সরকারের বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে বলছে, গত এক মাসের ব্যবধানে আমদানিকৃত পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ১৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ। তবে দেশি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে সবচেয়ে বেশি, ২২ দশমিক ২২ শতাংশ।

কারওয়ান বাজারের এক পেঁয়াজ বিক্রেতা জানান, কোরবানির ঈদে পেঁয়াজের চাহিদা অনেক বেশি থাকে। এজন্য প্রতিদিন এর চাহিদা বাড়ছে। এছাড়া এবার দেশের বিভিন্ন জায়গায় টানা বৃষ্টিপাতের কারণে দেশি পেঁয়াজের ক্ষতি হয়েছে। সবমিলে ঈদের আগে আর পণ্যটির দাম কমার সম্ভাবনা নেই।

পেঁয়াজের মতো নতুন করে দাম না বাড়লেও এখনো বাড়তি দরেই বিক্রি হচ্ছে ডিম। বর্তমানে প্রতি হালি ফার্মের লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৩৬ টাকায়, যা এক মাস আগেও ছিল ২৮ টাকা। এ ছাড়া বাজারে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন প্রকার মাছ। বর্তমানে বাজারে প্রতিকেজি বড় রুই, কাতলা বা মৃগেল ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ ছাড়া পাঙ্গাস তেলাপিয়ার মতো চাষের কমদামি মাছও উঠেছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকায়। আর দেশি কৈ, টেংরা বা শিং কিনতে হলে গুনতে হবে ৬০০ টাকারও বেশি।

ওদিকে চালের বাজারে কোনো সুখবর নেই। রাজধানীর বিভিন্ন চালের বাজার ঘুরে দেখা যায় মোটা স্বর্ণা চাল এখনো বিক্রি হচ্ছে ৪৪-৪৬ টাকায়। এ ছাড়া পাইজাম ৪৬-৪৮ টাকা, সাধারণ মিনিকেট মানভেদে ৬২ থেকে ৬৬ টাকা। মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে কুমিল্লা রাইস এজেন্সির লিয়াকত হোসেন বলেন, মোটা চালের দাম এক মাসে দু-এক টাকা কমলেও সরু চালের দাম কমেনি। উল্টো বাড়ছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads