• শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
রমজানে পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি

সংরক্ষিত ছবি

পণ্যবাজার

রমজানে পণ্যের দাম বাড়বে না : বাণিজ্যমন্ত্রী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৮ মার্চ ২০১৯

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, পবিত্র রমজান মাসে ব্যবসায়ীদের সততার সঙ্গে ন্যায্যমূল্যে পণ্য বিক্রি নিশ্চিত করতে হবে। বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মজুত, সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রয়েছে। আসন্ন রমজান মাসে কোনো পণ্যের দাম বাড়বে না। চাহিদার তুলনার অনেক বেশি পণ্য মজুত রয়েছে। গত বছরের তুলনায় বর্তমানে অনেক পণ্যের মূল্য কম রয়েছে। সরবরাহ চেইনে কোনো সমস্যা নেই।

গতকাল সচিবালয়ে আসন্ন পবিত্র রমজান উপলক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের স্থানীয় উৎপাদন, আমদানি, মজুত অবস্থা ও মূল্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করে সাংবাদিকদের উদ্দেশে বক্তৃতার সময় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আসন্ন রমজান মাসে কোনো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির সঙ্গত কারণ নেই। পণ্য পরিবহনে যাতে কোনো ধরনের চাঁদাবাজি না হয়, সে জন্য প্রয়োজনীয় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। প্রতিটি জেলার প্রশাসন এ বিষয়ে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য ও সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে। আসন্ন পবিত্র রমজান মাসে দায়িত্বশীল আচরণ করে ব্যবসায়ীদের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, পণ্যের উৎপাদক ও আমদানিকারকরা পণ্য বিক্রির সময় রশিদ সরবরাহ করবেন, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা সে অনুযায়ী যৌক্তিক মূল্যে পণ্য বিক্রি করবেন। কৃত্রিম উপায়ে কোনো ধরনের পণ্যের সঙ্কট সৃষ্টি করার চেষ্টা করা হলে তাদের বিরুদ্ধে আইন মোতাবেক কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অনেক পণ্যের মূল্য গত বছরের তুলনায় কম আছে। আমদানি ও পরিবহন ক্ষেত্রে এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আনা-নেওয়া নিশ্চিত করা হবে। কোথাও কোনো প্রতিবন্ধকতা থাকবে না। দেশে উৎপাদিত পণ্য উৎপাদনে যাতে কোনো ধরনের সমস্যা না হয় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্য সচিব মো. মফিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান জ্যোতির্ময় দত্ত, এফবিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট মো. মফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাহাঙ্গীর, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম লস্কর, সিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, মেঘনা গ্রুপের চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল, এনবিআর, কৃষি মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয়, জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ও পুলিশ প্রশাসনের প্রতিনিধিরা এবং বিভিন্ন বাজার কমিটির নেতারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads