• শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম কমেছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা

সংগৃহীত ছবি

পণ্যবাজার

প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম কমেছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা

  • বাসস
  • প্রকাশিত ১৮ নভেম্বর ২০১৯

রাজধানীর পাইকারি বাজারে আজ পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কমেছে। তবে কাঁচা বাজারে পেঁয়াজের খুচরা মূল্য অপরিবর্তিত দেখা গেছে।

পাইকারি বাজারে স্থানীয় জাতের প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ১৬০ টাকা থেকে ১৭০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। এই জাতের পেঁয়াজ আগে ২০০ থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হত। আর মিয়ানমার থেকে আমদানী করা পেঁয়াজ আগে যেখানে ১৮০ টাকা থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হতো। আজ তা ১৪০ টাকা থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

রাজধানীর শ্যামবাজারে পেঁয়াজ আমদানীকারক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী মাজেদ বলেন, ‘ রাজধানীর শ্যামবাজারের পাইকারি বাজারে দেশীয় ও আমদানি করা উভয় জাতের প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম আজ ৪০ থেকে ৫০ টাকা কমেছে। আগে এই পেঁয়াজ ২০০ টাকা থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।’

রাজধানীর মিরপুর এলাকার খুচরা ব্যবসায়ী মিলন বলেন, রাজধানীর খুচরা বাজারে আজও প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২৪০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে।

রূপনগর এলাকার আরেক খুচরা ব্যবসায়ী জানান, পাইকারি বাজার থেকে রোববার ২২০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ ক্রয় করেছি, আজ সেই পেঁয়াজ ২৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি।

বাণিজ্য সচিব মো. জাফর উদ্দিন আজ বলেন, সরকার ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করায় শ্রীঘ্রই পেঁয়াজের বাজার স্থিতিশীল হবে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘সরকারের পক্ষ থেকে জনসাধারণকে আশ্বস্ত করতে চাই, সরকারের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার দরুন শ্রীঘ্রই পেঁয়াজের দাম কমে যাবে।’

তিনি আরো বলেন, পেঁয়াজের বাজার কারসাজি করার জন্য ইতোমধ্যে দু’হাজার ৫শ’ জনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

তিনি আরো জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে মিশর, তুরস্ক ও চীন থেকে পণ্যবাহী বিমানে করে পেঁয়াজ আমদানী করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আশা করছি এই উদ্যোগের ফলে আমদানী করা পেঁয়াজ আগামীকাল মঙ্গলবার দেশে পৌঁছবে।

তিনি বলেন, এছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত পেঁয়াজ বাজারে আসতে শুরু করেছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) বিরূপ পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য কার্যক্রম জোরদার করেছে।

চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানীর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর থেকে পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে। তবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের জন্য কয়েকদিন মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানী বন্ধ থাকায় আরো অস্বাভাবিকভাবে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়। এক পর্যায়ে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ২৫০ টাকায় গিয়ে দাঁড়ায়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads