• সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮, ৭ কার্তিক ১৪২৫
ads
আশুলিয়ায় রং তুলির আঁচড়ে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা

আশুলিয়ার শিমুলিয়া ইউনিয়নের আমতলা বাজারের পাশের মন্ডপ থেকে তোলা।

ছবি : বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

আশুলিয়ায় রং তুলির আঁচড়ে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা

  • আশুলিয়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

শারদীয় দূর্গা পূজাকে সামনে রেখে আশুলিয়ার পূজা মন্ডপ গুলিতে রং তুলির আচঁড়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। বাঙ্গালী হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা। এ উপলক্ষে সাভার ও আশুলিয়ায় ১৮৪ টিরও বেশি মন্ডপে প্রতিমায় রং তুলি আঁচড়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রতিমা শিল্পীরা। পূজা উৎসবকে পরিপূর্ণ রূপ দিতে মন্দির গুলোতে চলছে ব্যাপক সাজসজ্জা মূলক প্রস্তুতি।

প্রতিমা কারিগররা দেবী দূর্গার অনিন্দ্য সুন্দর রুপ দিতে দিনরাত করছেন রং তুলির কাজ। ইতি মধ্যে আশুলিয়ার বেশির ভাগ মন্ডপ গুলোতে প্রতিমার কাঠামো মাটির কাজ প্রায় শেষ। শুরু হয়েছে রং তুলি ও সাজসজ্জার কাজ।

আগামী ১৫ অক্টোবর শুরু হয়ে ৫ দিনব্যাপী চলবে হিন্দু ধর্মের সব চয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা। আশুলিয়ার স্থানীয় শিল্পীরা ছাড়াও বিভিন্ন স্থান থেকে আগত শিল্পীরা এখানে এসে রং তুলির কাজ করছে। প্রতিটি পূজা মন্ডপ এর জন্য তৈরী হচ্ছে দূর্গা, শরস্বতী, লক্ষী, গনেশ, কার্তিক, অসুর, সিংহ, হাঁস, পেঁচা, সর্পসহ বিভিন্ন প্রতিমা।

অন্যদিকে প্রতিমার পাশাপাশি শারদীয় দূর্গা পূজাকে জাঁকজমকপূর্ণ করে তুলতে বাদ্যযন্ত্র ঠিক ও তৈরী করতে ব্যস্ত সময় পার করছে ঢাক, ঢোল, কাঁশি, বাঁশি বাদ্যকাররা।

এ দিকে দেবীকে স্বাগত জানাতে সর্বত্র আনন্দঘন পরিবেশ বিরাজ করছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সব ধরনের শ্রেণী পেশার নারী-পুরুষদের মধ্যে। সব মিলিয়ে ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে আশুলিয়ার প্রতিটি পূজা মন্ডপে।

এ ব্যাপারে সাভার উপজেলা পূজা কমিটির সভাপতি বরুন ভৌমিক নয়ন বলেন, আমরা শারদীয় দূর্গা পূজাকে বরন করতে প্রায় সব ধরণের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। শুধু সাজসজ্জার সামান্য কাজ বাকি। আমাদের সামনে যে সময় আছে তাতে আমরা সময় মত সব শেষ করতে পারবো। সব মিলিয়ে আমাদের এবারের পূজা আনন্দঘন ও জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে শেষ হবে বলে আশাবাদি।

পুজাকে সামনে রেখে আশুলিয়া থানার ওসি (অপারেশন) মোহাম্মদ মনিরুল হক ডাবলু বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সব চেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা অনুষ্ঠান সম্পূন্ন করার লক্ষে আইন শৃংখলা বাহিনী সজাগ দৃষ্টি রাখছে। অন্যান্য বছরের চাইতে এবার ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহন করা হয়েছে। আমরা আশা করছি এবারের পুজায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবেনা । তবে এ জন্য তিনি সকল স্তরের মানুষের সহযোগীতাও কামনা করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads