• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬
ads
চাঁদা না দেওয়ায় মাছ ধরতে পারছেন না ইজারাদাররা

সংগৃহীত ছবি

সারা দেশ

চাঁদা না দেওয়ায় মাছ ধরতে পারছেন না ইজারাদাররা

  • প্রকাশিত ২২ অক্টোবর ২০১৮

ভৈরবে চাঁদা না দেওয়ায় ওরার খাল ও দাড়িয়ার বিলে মাছ ধরতে পারছেন না ইজারাদাররা। দাবি করা দুই লাখ টাকা না পেয়ে মাছ ধরা বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় জামাল মিয়া সিন্ডিকেট। শুধু তাই নয়, তারা খালের মুখে বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার করে নিচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন, মৎস্য অফিস ও থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েও কোনো প্রতিকার না পেয়ে হতাশ ইজারাদাররা লাখ লাখ টাকার ক্ষতির আশঙ্কা করছেন। তবে ভৈরব থানা পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছে।

মাছের অভয়ারণ্য’খ্যাত ভৈরবের সবচেয়ে বড় হাওর ওরার খাল ও দাড়িয়ার বিল থেকে ধরা দেশীয় বিভিন্ন প্রজাতির সুস্বাদু মাছ স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ হয়ে থাকে। কিন্তু এ মৌসুমে মাছ শিকারের প্রস্তুতিকালে চাঁদাবাজ জামাল সিন্ডিকেট ঝামেলা সৃষ্টি করে জেলে ও ইজারাদারদের ক্ষতির মুখে ঠেলে দিয়েছে।

ইজারাদার তাহের মিয়া, তারা মিয়াসহ কয়েকজন বলেন, ‘প্রতি বছর সরকারি কোষাগারে ৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকা জমার ভিত্তিতে ২০১৭ সালে এ দুটি খাল ও বিল আমরা ৩ বছরের জন্য ইজারা নিয়েছি। কিন্তু জামাল মিয়া তার লোকজন নিয়ে আমাদের কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা না দেওয়ায় তারা আমাদের মাছ শিকারে বাধা দেয়। এ বিষয়ে আমরা ভৈরব থানা, ইউএনও এবং মৎস্য কর্মকর্তাকে লিখিতভাবে জানিয়েও কোনো প্রতিকার পাইনি।’

তবে ভৈরব থানার ওসি মো. মোখলেছুর রহমান জানান, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads