• শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, ৫ মাঘ ১৪২৪
ফরিদগঞ্জে ঔরস মাহফিলের তবারুক খেয়ে অর্ধ সহস্রাধিক অসুস্থ

ছবি : সংগৃহীত

সারা দেশ

ফরিদগঞ্জে ঔরস মাহফিলের তবারুক খেয়ে অর্ধ সহস্রাধিক অসুস্থ

  • চাঁদপুর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১২ জানুয়ারি ২০১৯

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৩নং সুবিদপুর পুর্ব ইউনিয়নের উভারামপুর পাটোয়ারী বাড়ীতে বার্ষিক ঔরস ও দোয়ার মাহফিলের তবারুক খেয়ে প্রায় অর্ধ সহস্রাধিক নারী, পুরুষ ও শিশু অসুস্থ হয়ে পড়ে। গতকাল শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত এ ঘটনায় ১৪ নারী, পুরুষ ও শিশু মতলব আন্তজার্তিক উদরাময় গবেষনা কেন্দ্রে (মতলব কলেরা হাসপাতাল) চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে।

সূত্র থেকে জানা যায়, গত ৯ জানুয়ারী উভারামপুর পাটোয়ারী বাড়ীর বার্ষিক ঔরস ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। ঐ ঔরষ মাহফিলে ১১ জানুয়ারী শুক্রবার তেহারী (ডাল, গরুর মাংস, মসলা) জাতীয় খাবার খেয়ে কয়েক গ্রামের তিন সহস্রাধিক নারী, পুরুষ ও শিশু তাবারুক খায়। ৪/৫ ঘন্টা পরে অনেকেরই বমি ও পাতলা পায়খানা হতে শুরু করে। এদের মধ্যে বেশীরভাগ নারী, পুরুষ ও শিশু প্রাথমিকভাবে হাসপাতালে ও পাশ্ববর্তী এলাকায় চিকিৎসা সেবা নিয়েছে।

তন্মধ্যে ১৪ নারী, পুরুষ ও শিশু মতলব আন্তজার্তিক উদরাময় গবেষনা কেন্দ্রে (মতলব কলেরা হাসপাতাল) চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৬ জনকে আশংকাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তারা হলো- সাফায়েত হোসেন (০২), সুরুঙ্গচাল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের স্ত্রী সাবিনা বেগম, চৌরাঙ্গা গ্রামের আঃ হাইয়ের মেয়ে সুমাইয়া (১৬), শাহরাস্তির ইদ্রিছ মিয়ার ছেলে মোঃ হোসেন (৩৬), নাটেহরা গ্রামের মৃত আঃ হকের ছেলে আঃ সামাদ, একই গ্রামের আঃ সামাদের স্ত্রী মমতাজ (৩৬) মতলব আন্তজার্তিক উদরাময় গবেষনা কেন্দ্রে (মতলব কলেরা হাসপাতাল) চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। বাকী ৮জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী পাশ্ববর্তী উভারামপুর পার্শ্ববর্তী হাজীগঞ্জ উপজেলার শমেশপুর গ্রামের তানজিমুল ইসলাম মামুন জানান, গত শুক্রবার দুপুরের পরে ঐ ঔরষ মাহফিলের তাবারুক খেয়ে আমাদের গ্রামের বেশ কিছু লোককে হাসাপাতাল ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা সেবা নিতে দেখা গেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads