• সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬
ads
পীরগঞ্জে চতরা হাটের অবৈধ ১১ ঘর উচ্ছেদ ও বালু উত্তোলনের ৩ স্যালোমেশিন ধ্বংস

পীরগঞ্জের চতরা হাটের ১১ ঘর গুড়িয়ে দেয় ভ্রামমাণ আদালত

সংগৃহীত ছবি

সারা দেশ

পীরগঞ্জে চতরা হাটের অবৈধ ১১ ঘর উচ্ছেদ ও বালু উত্তোলনের ৩ স্যালোমেশিন ধ্বংস

  • পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

রংপুরের পীরগঞ্জে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের সময় ৩টি স্যালোমেশিন পুড়িয়ে এবং চতরাহাটের ১১টি ঘর উচ্ছেদ করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।  এসময় এক ব্যক্তি আটক করে ওই আদালত।  

আজ সোমবার দিনভর উপজেলার করতোয়া নদী ও চতরাহাটে অভিযান চলে।

জানা গেছে, উপজেলার বড়আলমপুর ইউনিয়নের ধর্মদাশপুর, শিমুলবাড়ী, রামনাথপুর, উচাপাড়াসহ কয়েকটি গ্রামের লোকজন সমিতি করে করতোয়া নদী থেকে দীর্ঘদিন ধরে বালু উত্তোলন করে আসছে। পাশপাশি বালুভর্তি ট্রাক্টরের চাপায় অর্ধশতাধিক মানুষ নিহত এবং গ্রামীন রাস্তা চলাচলের অনুপযোগি হওয়ায় ৩০০ নারী-পুরুষ বালু উত্তোলন বন্ধে ধর্মদাশপুর আমিনিয়া দাখিল মাদরাসা মোড়ে গত ৫ ফেব্রুয়ারী মানববন্ধন করে।

ওই ঘটনায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে করতোয়া নদীর পাড়ে বালু উত্তোলনের সময় ৩ টি স্যালোমেশিন পুড়িয়ে দেন। এ সময় ১টি ট্রাক্টর ও ১ ব্যক্তিকে আটক করেছে।

অপরদিকে উপজেলার চতরা ইউনিয়নের চতরাহাটে প্রভাবশালীরা রাতারাতি ১১টি টীনের ঘর অবৈধভাবে নির্মান করে। ইউনিয়নটির তহশিলদারের অভিযোগের ভিত্তিতে ওই আদালত ১১টি ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে।

সহকারী কমিশনার (ভুমি) সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, ৯ একর ৩১ শতক জমির উপর চতরাহাটটি অবস্থিত। হাটটির অধিকাংশ জমি অবৈধভাবে দখল হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads