• শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
ads
প্রতিপক্ষের আঘাতে অন্তঃসত্তা নারীসহ ৩ জনের মৃত্যু

ছবি : সংগৃহীত

সারা দেশ

ইট ভাটার মাটি কাটা নিয়ে সংঘর্ষ

প্রতিপক্ষের আঘাতে অন্তঃসত্তা নারীসহ ৩ জনের মৃত্যু

  • প্রকাশিত ১৯ মার্চ ২০১৯

বিজয়নগর (ব্রাহ্মনবাড়িয়া) প্রতিনিধি:

 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজয়নগর উপজেলার চান্দুরা ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামে ইট ভাটার মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের মধ্যে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গত (১২ মার্চ) মঙ্গলবার উপজেলার চান্দুরা ইউনিয়নের মিরপুর এলাকার চামুর গোষ্ঠির প্রবাসী সোহেল মিয়ার সঙ্গে একই এলাকার মোশল মিয়ার বিরোধ চলে আসছিল। কিছুদিন পূর্বে উপজেলার আব্দুল্লাহপুর এলাকায় মাটি কাটার মেশিন দিয়ে মাটি কাটার সময় মোশল মিয়ার লোকজন মেশিন ভাংচুর করে।

এরই জের ধরে গত (১২ মার্চ) মঙ্গলবার উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে দেশীয় অস্ত্রাদি নিয়ে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। এতে করে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন। আহতদেরকে প্রথমে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়। পরে গুরুতর অবস্থায় আহতদের মধ্যে মোঃ কালা মিয়া (৬০), কলেজ পড়ুয়া ছাত্র মুনসুর (২২) ও অন্তঃসত্তা নারী নাছিমা বেগমকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। পরে ১৬ মার্চ থেকে ১৮ মার্চ পযর্ন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহতদের মধ্যে তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

নিহতরা হলেন- হাজী আলী বক্সের ছেলে মোঃ কালা মিয়া (৭০), একই এলাকার খোশ মিয়ার কলেজ পড়ুয়া ছেলে মুনসুর (২২) ও মোঃ আল আমিনের অন্তঃসত্তা স্ত্রী নাছিমা বেগম (৩০)। এ দিকে আহতদের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর প্রতিপক্ষের লোকজন এলাকার ছেড়ে পালিয়েছেন বলে জানা গেছে। বর্তমানে এলাকাকে শান্ত রাখার জন্য অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রাখা হয়েছে । তবে এখনো পযর্ন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক অলিউল্লাহ জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে জানতে পেরেছি। তবে ডেথ সার্টিফিকেট এখনো আসেনি। ঘটনার পর উভয় পক্ষই মামলা দিয়েছিল। এখন এই ঘটনায় হত্যাকান্ডের মামলায় রুপ নেবে।

এ বিষয়ে বিজয়নগর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফয়জুল আজীম নোমান জানান, এলাকার পরিস্থিতি এখন স্বাভাবি রয়েছে এবং পুলিশ মোতায়ন আছে । আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads