• বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৫
ads
সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ

সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ

প্রতীকী ছবি

সারা দেশ

সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে ধর্ষণ

  • সেনবাগ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৮ এপ্রিল ২০১৯

সেনবাগে এবার ৪র্থ শ্রেণীর এক ছাত্রী (১০) ধর্ষণ অভিযোগ ওঠেছে ৬৫ বছরের বৃদ্ধার বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক আবুল বসর পলাতক রয়েছে।

গত সোমবার ১৫ই এপ্রিল বিকেল ৫ টায় সেনবাগ উপজেলার মধ্যম মোহাম্মদপুর গ্রামে ধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। খবর পেয়ে নোয়াখালীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বেগমগঞ্জ -সার্কেল) মো: শাহজাহান শেখ, থানার ওসি তদন্ত আবদুল আলী পাটোয়ারী সহ বিপুল সংখ্যক পুলিশ রাত ১০ টায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং অভিযুক্ত আবুল বসরকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন।

বুধবার রাত ১১ টার দিকে সেনবাগ থানা পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের পিতা জহির উদ্দিন বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলা দায়ের করেছে। 

শিশুটির মা জানান, ১৫ই এপ্রিল বিকেল ৫ টায় মেয়েটি তার সহপাটিদের নিয়ে খেলছিলো। এ সময় পাশ্ববর্তী মৌলভী বাড়ীর আবুল বসর তাকে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। এবং ঘটনাটি কাউকে না বলার জন্য শাসিয়ে দেয়। ১৬ এপ্রিল বিকেলে শিশুটির সহপাটিরা আগের দিনে বৃদ্বের সাথে কি ঘটেছে জিজ্ঞাসা করলে ঘটনাটি ফাঁস হয়। ১৭ই এপ্রিল বিকেলে শিশুটির অসহায় পিতা জহির কন্যার সাথে আবুল বসরের বিকৃত যৌনাচার ও ধর্ষণের বিচার চেয়ে স্থানীয় লোকজনকে জানিয়ে শালিস বৈঠক ডাকে। পাড়ার লোকজন জড়ো হলেও অভিযুক্ত আবুল বসর বৈঠকে না আসায় রাত পৌনে ১০ টায় বিষয়টি থানায় জানায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ধর্ষক আবুল বসর পালিয়ে যায়।

এরআগে গত ৭ এপ্রিল উপেজেলার ছাতারপটাইয়া ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের৩শ্রেনীর এক স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়। পুলিশ ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত রাজনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। বর্তমানে ওই মামলাটি তদন্ত করছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads