• সোমবার, ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
পত্নীতলায় আগাছানাশক প্রয়োগে ধানগাছ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

নওগাঁর পত্নীতলায় আগাছানাশক প্রয়োগ করে এভাবেই ধানগাছ পুড়িয়ে দেওয়া হয়

ছবি : বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

জমির মালিকানা নিয়ে বিরোধ

পত্নীতলায় আগাছানাশক প্রয়োগে ধানগাছ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ

  • পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৩ এপ্রিল ২০১৯

নওগাঁর পত্নীতলায় অতিরিক্ত পরিমাণ আগাছানাশক প্রয়োগ করে ২.৪ একর জমির পাকা ধানগাছ পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত রবিবার রাতে উপজেলার পাটিচড়া ইউ’পির আমিনাবাদ গ্রামে এ ঘটনায় ঘটেছে। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা গেছে, আমিনাবাদ গ্রামের মৃত আহম্মদ আলীর পুত্র আবু ইউসুফ তার নিজ জমিতে দীর্ঘদিন ধরে চাষাবাদ করে আসছে। একই গ্রামের আব্দুস ছোবহানের পুত্র মামুন, আমিরুল ইসলামের পুত্র মাসুদ রানার সাথে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জেরে মামুন, মাসুদ, মোস্তাফিজুর, ফরহাদ, মজিদ, হামিদুলসহ অজ্ঞাত আরো ১৫/২০ জন ইউসুফের ২.৪ একর জমির ধানগাছে অতিরিক্ত পরিমাণ আগাছানাশক প্রয়োগ করেছে বলে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ইসমাইল হোসেনের পুত্র তোফাজ্জল হোসেন, মৃত আহম্মদ আলীর পুত্র আব্দুল মান্নান জানান।

এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক আবু ইউসুফ জানান, মামুন ও মাসুদ রানার সাথে আমার অন্য একটি জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। জমি তাদের ছেড়ে দেওয়ার মাধ্যমে যা ইতিমধ্যে মিমাংসা করা হয়েছে। এরপরও তারা অন্যায়ভাবে আমার উঠতি ধান পুড়িয়ে দিয়েছে। এ ঘটনায় আমার প্রায় ৫০হাজার টাকা লোকসান হয়েছে। দোষীদের শাস্তি প্রদানের জন্য তিনি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

অভিযোগের সূত্র ধরে অভিযুক্ত মামুন ও মাসুদ রানার সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, এ অভিযোগ মিথ্যা। অভিযোগকারী নিজেই জমিতে বিষ দিয়ে ধান পুড়িয়ে তাদের ফাঁসানোর চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে পত্নীতলা উপজেলা কৃষি অফিসার প্রকাশ চন্দ্র সরকার বলেন, ঘটনা শোনার পর আমি ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম এবং অতিরিক্ত পরিমাণ আগাছানাশক প্রয়োগ করে ধান পুড়িয়ে দেওয়ার সত্যতা পেয়েছি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads