• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
সিরাজগঞ্জে জোরপূর্বক সরকারী ও মালিকানা সম্পত্তিতে বালু স্তুপ

জোরপূর্বক সরকারী ও মালিকানা সম্পত্তিতে বালু স্তুপ

ছবি : বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

সিরাজগঞ্জে জোরপূর্বক সরকারী ও মালিকানা সম্পত্তিতে বালু স্তুপ

  • সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৪ আগস্ট ২০১৯

সিরাজগঞ্জের মতিন সাহেবের ঘাটে যমুনা নদী থেকে উত্তোলণকৃত বালু জোরপুর্বক সরকারী ও মালিকানা জায়গায় স্তুপ করে রাখার অভিযোগ ওঠেছে। মাত্র কয়েকমাস আগে একই স্থানে বালু স্তুপ করে রাখায় ভ্রামমান্য আদালত বালু জব্দ করে নিলামে বিক্রি করে দিয়েছিল। অথচ সেই একই জায়গায় নিলামকৃত বালুর উপরে এবং আশপাশের ব্যক্তি মালিকানা জায়গায় মাত্র কয়েক মাসের ব্যবধানে প্রভাবশালী কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী বালু উত্তোলন করে স্তুপ করায় জনমনে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে। এনিয়ে নিলাম গ্রহীতা ধানবান্ধি সততা বহুমুখী সঞ্চয় সমিতির পক্ষ থেকে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন বরাবর অভিযোগও দেয়া হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ জানা যায়, গত মে মাসে ধানবান্ধি-পুঠিয়াবাড়ী মৌজায় সরকারী সম্পত্তিতে স্তুপকৃত বালু ভ্রাম্যমান আদালত জব্দ করে। ৬মে ওই বালু প্রশাসন নিলামে ডাকলে ৬লক্ষাধিক টাকা দিয়ে সততা বহুমুখী সঞ্চয় সমিতি কিনে নেয়। কিন্তু বন্যার পানি চলে আসায় ওই বালি বিক্রি করতে না পারায় তা পানির নীচে তলিয়ে যায়। এঅবস্থায় যমুনা বালু উত্তোলণকারী নতুন ইজাদারের মদদপুষ্ট কতিপয় ব্যবসায়ী নিলামকৃত পানির মধ্যে থাকা ওই বালির উপর জোরপুর্বক বালু ফেলছে। এছাড়াও নতুন করে আরো সরকারী জায়গাসহ ব্যক্তি মালিকানা জায়গা দখল বালু স্তুপ করে রাখছে। এতে নিলাম কিনে নেয়া সমিতিসহ জমির মালিকরা আর্থিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় অবিলম্বে বালু উত্তোলন বন্ধে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সমিতির সদস্যসহ জমির মালিকরা।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরকার মোহাম্মদ রায়হান ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনিসুর রহমান জানান, সরকারী সম্পত্তিতে বালু স্তুপ রাখা অবৈধ। সার্ভেয়ারের মাধ্যমে খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads