• রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
সোনারগাঁয়ে সৎ মায়ের হাতে ৭ বছরের শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ

প্রতীকী ছবি

সারা দেশ

সোনারগাঁয়ে সৎ মায়ের হাতে ৭ বছরের শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ

  • সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার টিপুরদী মানিকের ভিটা গ্রামে সৎ মায়ের হাতে নির্যাতনে সাত বছরের শিশুকে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুক্রবার বিকেলে রুটি তৈরির বেলুন দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। আহত ওই শিশু সামিয়াকে উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই শিশুর আসল মা কারিমা আক্তার বাদী হয়ে দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ২-৩জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা অভিযোগে ওই শিশুর মা উল্লেখ করেন, উপজেলার সোনারগাঁ পৌরসভার টিপুরদী মানিকের ভিটা গ্রামের মুল্লুকচাঁনের ছেলে সৌদী প্রবাসী আল আমিনের সাথে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের দুই পুত্র সন্তান মোহাম্মদ ও আব্দুল আজিজ ও একটি কন্যা সন্তান সামিয়ার জন্ম হয়। তাদের পারিবারিক কলহের কারণে তাকে রেখে তার স্বামী আরো একটি বিয়ে করে। বিয়ের পর তাকে তার বাবার বাড়ি রূপগঞ্জে পাঠিয়ে দেয়। পারিবারিক কারণে তার দ্বিতীয় স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়। গত এক মাস আগে সে বিদেশ থেকে মোবাইল ফোনে সীমা আক্তার নামের এক মহিলাকে বিয়ে করে। বিয়ের পর তার স্বামীর অনুপস্থিতিতে তার দুই ছেলে ও এক মেয়ে সামিয়াকে মারধর করে। গত শুক্রবার বিকেলে তার স্বামী আল আমিনের নির্দেশে তার মেয়ে সামিয়াকে রুটি তৈরির কাঠের বেলুন দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। পাশের বাড়ির লোকজন ওই শিশু সামিয়াকে উদ্ধার করে সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। ঘটনার পর শিশু সামিয়ার নিজের মা কারিমা আক্তার বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

টিপুরদী গ্রামের বাসিন্দা ও পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি আব্দুল খালেক প্রধান জানান, সামিয়ার বাবা বিদেশ থাকে। তার বাবার অনুপস্থিতিতে তার সৎ মা বিভিন্ন সময়ে শারিরিকভাবে নির্যাতন করে। সৎ মায়ের নির্যাতনে ওই শিশু মেয়েটি অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। মেয়েটিকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, শিশু নির্যাতনের ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে নির্যাতনকারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads