• বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬
ads
নির্ধারিত সময়েও শেষ হয়নি দুর্গাপুর-কলমাকান্দা সড়কের সংস্কার কাজ

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

নির্ধারিত সময়েও শেষ হয়নি দুর্গাপুর-কলমাকান্দা সড়কের সংস্কার কাজ

  • রিফাত আহমেদ রাসেল, দুর্গাপুর (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১০ অক্টোবর ২০১৯

নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত ৫ মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো সংস্কার কাজ শেষ হয়নি নেত্রকোণার দুর্গাপুর-কলমাকান্দা সড়কের। উল্টো ২৪ কিলোমিটার এই সড়কের পুরোটা জুড়েই তৈরি হয়েছে ছোট বড় অসংখ্যা খানাখন্দের। ফলে প্রতিদিন ঘটছে দুর্ঘটনার।

স্থানীয়রা বলছেন, চলতি বছরের মে মাসেই সড়কটির কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকেও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান প্রভাবশালী হওয়ায় দীর্ঘ দিন ধরেই কাজ বন্ধ করে রেখেছে তারা। ফলে প্রতিনিয়তই দুর্ভোগ পোহাচ্ছে রোগী সহ দুই উপজেলা হাজারো মানুষের। 

দুর্গাপুর-কলমাকান্দা এই দুই উপজেলায় প্রায় ছয় লাখ মানুষের বসবাস। প্রতিদিন উপজেলা দুইটির লাখো মানুষ, যানবাহন থেকে শুরু করে রোগীবাহী গাড়ী সহ সকল কিছুই যাতায়াত করছে এই সড়ক দিয়ে। কিন্তু বিগত কয়েক বছর ধরে এই সড়কটিতে যাত্রী চাপ বাড়ায় দিন দিন খারাপ হয়ে থাকে সকড়টি। সমস্যা সমাধানে বর্তমান সরকার এলজিইডির অওতায় দুর্গাপুর-কলমাকান্দা পর্যন্ত প্রায় ২৪ কিলোমিটার এই সড়কটি নতুন করে সংস্কারের জন্য মোট তিন প্যাকেজে গত বছরের ৫ ই আগস্ট সাড়ে ২৪ কোটি টাকায় ব্যয়ে ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেড নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সংস্কার কাজ শুরু করে। এর মাঝে দুর্গাপুর-নাজিরপুর পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার একটি প্যাকেজ ও নাজিরপুর- কলমাকান্দা বাজার পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার বাকী দুইটি প্যাকেজ ধরা হয়।

যা চলতি বছরের ৬ই মে সম্পূণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের অতিরিক্ত পাচঁ মাস পার হয়ে গেলেও এখনো সড়কের বেশির ভাগ অংশের কোনো কাজই করেনি ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। আর যে সব স্থানে বা কাজ করেছে ঐ অংশে শুধু ইট দিয়ে কার্পেটিং করে রাখায় বৃষ্টির পানি জমে তৈরি হয়েছে ছোট বড় অসংখ্যা খানাখন্দে ফলে প্রতিদিন যানবাহন খানাখন্দে পড়ে ঘটছে র্দূঘটনা।

সরজমিনে দেখাযায়, পৌর শহরের প্রেসক্লাব মোড়, দেশায়ালীপাড়া, এমকেসিএম মোড়, বুরুঙ্গা, চন্ডিগড় ইউনিয়নের মাকরাইল, চন্ডিগড় বাজার, একতা বাজার, সাতাশি, মধুয়াকোণায় সহ বিভিন্ন স্থানে যানবাহন তো দূরের কথা মানুষ হেটেই চলাচলের কোনো পথ পাচ্ছে না। এই এলাকায় সড়কের বড় বড় খান্নাখন্দে প্রতিদিনই মাল ও যাত্রীবাহী যানবাহন আটকে পড়ে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। অনেক সময় যান বিকল হয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা এমনি ৪/৫ দিন একই স্থানে যান পড়ে থাকতে দেখা গেছে। ফলে এই সড়ক দিয়ে যাতাযাতকারী যাত্রী, রোগী, শিক্ষার্থীসহ সকলেই জিম্মি হয়ে পড়েছে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে কাছে।

এই দিকে বিগত দুই ঈদ ও পূজায় শহর থেকে সবার সঙ্গে উযাপন করতে গ্রামে এসে পড়েছেন নানা রকম বিড়াম্বনায়। সড়কের বেহাল দশা ও বড় বড় খান্নাখন্দ মানুষের যাতায়াতে নেমে আসে সীমাহীন ভোগান্তিতে।

সাতাশি গ্রামের বাসিন্দা জলিল মিয়া জানায়, আগে যাওয় সড়কটি দিয়ে চলাচল করা যাইতো এখন উন্নয়নের বলে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান সড়ক খোঁড়াখুঁড়ি করে আমাদের চলাচল বন্ধ করে দিচ্ছে। এক বছর আগে একটু কাজ শুরু করছিলো আর এখনো শেষ দূরের কথা শুরুই করে নাই। ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারিদের দেখি না।

উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) কর্মকতা আব্দুল আলিম লিটন জানায়, ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ধীরগতির কাজের কারণে এখনো সড়কের কাজটি শেষ হয়নি। আমরা তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করেছি যাতে দ্রুত সময় মাঝে কাজটি শেষ করে। 

এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য মানু মজুমদার এমপি বলে, দীর্ঘ দিন ধরে দুর্গাপুর-কলমাকান্দা এই দুই উপজেলা মানুষ এই সড়কটির জন্য কষ্ট করে আসছেন। সড়কটির কাজ অনেক আগেই শেষ হওয়ার কথা ছিলো কিন্তু ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানে গাফিলতির কারণে সড়কেটি এখনো কাজ হয়নি। ইতোমধ্যে মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে সড়কটির কাজ কথাও বলেছি। আর মানুষ যেনো এই সড়ক দিয়ে নির্বিঘেœ চলাচল করতে পাড়ে তা জন্য আমি আমার ব্যক্তিগত অর্থে বালি ও পাথর দিয়ে সড়কটি সংস্কার করেছি।

এ ব্যাপারে বেশ কয়েকবার যোগাযোগ করা হলেও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ডলি কনস্ট্রাকশন লিমিটেডের কোনো কর্মকর্তা কথা বলতে রাখি হয়নি ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads