• শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
ads
তাড়াশে বিএনপির দুগ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নতুন আহবায়ক কমিটির মিটিংকে কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষ

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

তাড়াশে বিএনপির দুগ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১০

  • সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৬ নভেম্বর ২০১৯

সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নতুন আহবায়ক কমিটির মিটিংকে কেন্দ্র করে দুগ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। হামলায় জেলা বিএনপির নেতাসহ ১০জন আহত হয়েছে।

আজ বুধবার দুপুরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও দলীয় নেতারা জানান, ২০ সেপ্টেম্বর তাড়াশ উপজেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। আহবায়ক কমিটি নিয়ে তাড়াশে বিএনপির দলীয় নেতা-কর্মীরা দুইগ্রুপে বিভক্ত হয়ে পড়ে। আহবায়ক কমিটির পক্ষে অবস্থান নেন সাবেক সম্পাদক সরদার আফসার আলীর গ্রুপ আর বিপক্ষে অবস্থান সাবেক সভাপতি খন্দকার সেলিম জাহাঙ্গীর গ্রুপ। এ অবস্থায় মঙ্গলবার আহবায়ক কমিটির প্রথম মিটিংয়ের আয়োজন করা হয়। মিটিংয়ে জেলা বিএনপি নেতারা তাড়াশে পৌছলে সেলিম জাহাঙ্গীর গ্রুপ নেতাদের গাড়ীতে হামলা চালিয়ে নেতাদের মারপিট ও গাড়ী ভাংচুর করে। এ নিয়ে দুপক্ষে সংঘর্ষের জড়িয়ে পড়ে। পরে নেতারা উপজেলার মহুরী অফিসে মিটিংয়ে আয়োজন করলে সেখানে সেলিম জাহাঙ্গীরের ভাই সাইফুলের নেতৃত্বে আবারো হামলা চালালে দুগ্রুপে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এতে জেলা বিএনপির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মুন্সি জাহিদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ সুইট, তাড়াশ আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব সাঈদুর রহমান ও সদস্য জিয়া রহমান সহ কমপক্ষ ১০ জন আহত হয়। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আহত জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মুন্সী আলম ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাইদ সুইট জানান, আমরা গাড়ী নিয়ে পৌছামাত্র সেলিম জাহাঙ্গীরের ভাইয়ের নেতৃত্বে হামলা চালানো।

জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু জানান, যারা নেতৃবৃন্দেও উপর হামলা চালিয়েছে তারা বিএনপির নেতাকর্মী হতে পারে না। তদন্ত করে দায়ীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সংঘর্ষের সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পৌছে পরিস্থতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়। দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ঘটলে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads