• মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
গুরুদাসপুরে মা মেয়ের অসমাজিক কর্মকাণ্ড, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

অভিযুক্ত মা হালিমা ও তার মেয়ে চামেলি

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

গুরুদাসপুরে মা মেয়ের অসমাজিক কর্মকাণ্ড, এলাকাবাসীর বিক্ষোভ

  • গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৫ জানুয়ারি ২০২০

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর গোডাউন মোড় আদর্শ গ্রামের ভূমিহীনদের জায়গা জবরদখল করে দীর্ঘদিন ধরে অসামাজিক কর্মকান্ড করার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসী।

আজ রবিবার দিনভর ওই অভিযোগে কথিত মক্ষিরাণী হালিমা ও তার মেয়ে চামেলি খাতুনের বিরুদ্ধে দফায় দফায় বিক্ষোভ করেছে এলাকার শতাধিক নারী-পুরুষ। এমনকি তিনদিন আগে ওই মা মেয়ের কাছে কোনো দোকানী যাতে কিছু বিক্রি করতে না পারে সেজন্য মাইকিংও করা হয়েছে।

এ ঘটনায় চামেলি ও তার মা হালিমা বলেন, এলাকার কিছু লোক আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ রটিয়ে ঘরবাড়ি ভাংচুর করেছে। দুদিন ধরে ঘিরে রেখেছে তাদের বাড়ি। এদিকে হালিমার ছেলে সুমন আলী (২০) তার মা ও বোনের নানা অপকর্মের কথা জানান স্থানীয় সাংবাদিকদের। সম্মানহানীর ভয়ে অনত্র বসবাস করছে বলে তিনি জানান। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। রবিবার বিকেলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়।

প্রতিবেশি দরিদ্র দিনমজুর ইউসুফ আলী, হুসনে আরা, রহিমা, সাদিয়াসহ অনেকেই জানান, চামেলিরা তাদের জায়গা জবরদখল করেছে। গাছ কেটে নিয়েছে। প্রতিবাদ করলেই পুলিশের ভয় দেখায়। সেই ভয়ে এতদিন অন্যায় অত্যাচার নিরবে সয়ে গেছে তারা। কিন্তু তাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে। ছেলে মেয়েকে সামাজিক মর্যাদায় গড়ে তুলতে এদের উচ্ছেদের দাবি করেন তারা।

এদিকে হালিমা ও তার মেয়ের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানী এবং মাদক বিক্রির অভিযোগও করেছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. উজ্জল মিয়াসহ অনেকেই। রবিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে নাজিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, হালিমা ও তার মেয়ে চামেলির অত্যাচারে ইউনিয়নবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। তারা গুচ্ছগ্রামের জায়গা দখল করে অসামাজিক কর্মকান্ড করায় এলাকাবাসী প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন।

গুরুদাসপুর থানার ওসি মো. মোজাহারুল ইসলাম বলেন, ওই মা মেয়ের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপকর্মের অভিযোগে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে এ ঘটনায় কেউই লিখিত অভিযোগ করেনি।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন, ভূমিহীনদের বরাদ্দ দেয়া আদর্শ গ্রামের জায়গা কেউ দখল করে থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রয়োজনে উচ্ছেদ করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads