• বৃহস্পতিবার, ৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
ভালোবাসার উদাহরণ ৯৮ বছর বয়সেও

ছবি: বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

ভালোবাসার উদাহরণ ৯৮ বছর বয়সেও

  • কে এম আনিছুর রহমান, সাতক্ষীরা
  • প্রকাশিত ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

‘জীবন ফুরিয়ে যাবে ভালোবাসা ফুরাবে না জীবনে, মোরা আরো আগে কেন আসিনি, কেন আসিনি এই ভুবনে।’ কনকচাঁপার গানের কথার মতো ফুরন্ত জীবনে অফুরন্ত প্রেম চোখে পড়ল ৯৮ বছর বয়সী এক বৃদ্ধের মধ্যে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসের সকালে এমনই দৃশ্য দেখা গেছে জেলার কলারোয়ার উত্তর সোনাবাড়িয়া গ্রামে। সম্ভ্রান্ত খাঁ বাড়ির মহতাব উদ্দীন খাঁ ও আয়মনা বিবির জীবনের পড়ন্ত বেলার ভালোবাসার এ জীবন্ত প্রদীপ যেন তারুণ্যের মহাকাব্য সৃষ্টি করেছে।

ফাগুনের প্রথম সকালে মহতাব উদ্দীন খাঁ ভালোসার এমন প্রতিচ্ছবি সবাইকে আবেগ আপ্লুত করে ফেলে। বয়সের বাঁধ মাড়িয়ে তিনি জানান দিয়েছেন ভালোবাসার কোনো বয়স নেই। সাড়ে ৭ যুগ আগে যার হাত ধরে ভালোবাসার প্রথম সকালটা শুরু হয়েছিল তিনি আজও যেন তার কাছে অমনি স্পর্শ। স্ত্রীকে দিলেন তাজা ফুলের গোছা। উভয়কে মুখে তুলে দিলেন মিষ্টি। আনন্দঘন এ দৃশ্যের সাক্ষী হলেন স্বজন ও প্রতিবেশীরাও। 

মহতাব উদ্দীন খাঁ বলেন, আমি আমার স্ত্রীকে খুব ভালোবাসি। তার জন্য এখনো আমি সচল। সে আমার যেভাবে যত্ন নেয়, তাতে আমি অনেক সুস্থ আছি ও ভালো আছি। যার কারণে এতকিছু, তাকে ভালো না বাসলে কাকে ভালোবাসব? ৭৫ বছরের দাম্পত্য জীবনে প্রিয় সহধর্মিণী ছিলেন তার আস্থা, ভরসা, অনুপ্রেরণার একটি নাম। তারুণ্যের সেই ভালোবাসার সময়গুলো জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত অটুট রাখতে চান তিনি।

মহতাব উদ্দীন খাঁ ও আয়মনা বিবি দম্পতি এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা-মা। রয়েছে চার নাতি-পুতি। কালো চুল সাদা হয়েছে, গায়ের চামড়াও ঢিলা হয়ে গেছে। হ্রাস পেয়েছে শারীরিক শক্তিও। তবু এতটুকুও কমেনি তাদের ভালোবাসা, বরং বেড়েই চলেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads