• বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
কুলাউড়ায় অভিনব প্রতারণায় প্রতারক চক্র

প্রতারকচক্রের বাজারে ছাড়া স্ক্রেচ কার্ড

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

কুলাউড়ায় অভিনব প্রতারণায় প্রতারক চক্র

  • কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

কুলাউড়া উপজেলায় এবার স্ক্র্যাচ কার্ড বিক্রি করে নিরীহ মানুষের কাছ থেকে একটি চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। গত ৩ মাস থেকে প্রতারক চক্র দরিদ্র মানুষের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিলেও প্রশাসন বিষয়টি রােধে কোন কার্যকর ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

রাউৎগাঁও ইউনিয়নের নর্তন গ্রামের মানুষ জানান, ডিকে এন্টারপ্রাইজের নামে ইউনিয়নের নজরুল ইসলাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের ভবনে অফিস নিয়ে প্রতারক এই প্রতিষ্ঠান। একটি স্ক্রেচ কার্ড বাজারে ছেড়েছে তারা। যার বাজার মূল্য ২শত টাকা। সেই স্ক্রেচকার্ডের ডিকে এন্টারপ্রাইজ যার হেড অফিস সুন্দরবন স্কায়ার মার্কেট, গুলিস্থান, ঢাকা-১০০০ হিসেবে ঠিকানা দেয়া আছে। সেই স্ক্র্যাচ কার্ডে ১৯, ২০, ২২, ২৪ ও ৩২ ইঞ্চি ওয়াল এলইডি টিভি, সেলাই মেশিন, মোটর সাইকেল ও মোবাইল জিতে নেয়ার লোভনীয় বিজ্ঞাপন দেয়া আছে। কার্ডে রেজি নং হিসেবে সি-০৮৮ লেখা আছে। বাস্তবে এই ধরনের স্ক্র্যাচ কার্ড বিক্রির বৈধতা নেই বলে স্থানীয় প্রশাসন সুত্রে জানা গেছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, ২০০ টাকার স্ক্রেচকার্ডে কোন স্ক্রেচ করার সুযোগ নেই। আগে থেকেই লেখা থাকে ওয়াল এলইডি টিভি ২০ ইঞ্চি বা একটি মাইক্রো ওয়েভেন। এজন্য দরিদ্র মানুষকে আর অতিরিক্ত ৬ হাজার ৫ শত গুনতে হবে। অথচ এই দামের চেয়ে কম দামে বাজারে টিভি কিংবা মাইক্রো ওয়েভেন কিনতে পাওয়া যায়। এসব পন্যের লোভ দেখিয়ে শুধু রাউৎগাঁও ইউনিয়ন নয় পাশ্ববর্তী ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়ন থেকেও টাকা নেয়া হচ্ছে। প্রতারক চক্রের দেয়া সেই কার্ডের মেয়াদ আবার মাত্র একমাস।

এদিকে রাউৎগাঁও ইউনিয়নের মানুষ এধরনের প্রতারণার ঘটনায় ক্ষুব্দ হয়ে উঠলে ডিকে এন্টারপ্রাইজের কার্ডে দেয়া দায়িত্বশীল ব্যক্তির মোবাইল নাম্বার (০১৩০৬৭৭৫৪৬৯) রোববার থেকে বন্ধ করে রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এটিএম ফরহাদ চৌধুরী জানান, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads