• রবিবার, ৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
কোয়ারেন্টাইনে ৪৫২ জন

সংগৃহীত ছবি

সারা দেশ

কোয়ারেন্টাইনে ৪৫২ জন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১৬ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস সন্দেহে বিভিন্ন স্থানে ৪৫২ জনকে পারিবারিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

ফেনী : করোনা ভাইরাসের সংক্রমন সন্দেহে ফেনীতে বিদেশ থেকে আসা ৬৬ জনকে পারিবারিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। সিভিল সার্জন ডা. সাজ্জাদ হোসেন গতকাল রোববার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ন। তবে বিমানবন্দরে এদের কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের লক্ষণ পাওয়া যায়নি এসব প্রবাসীদের নাম ঠিকানা নিয়ে যোগাযোগ করে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ এদের প্রত্যেককে ১৪ দিন পারিবারিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরমর্শ দেওয়া হয়েছে। এ দিকে জেলা প্রশাসন থেকে ফেনী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ৩০ বেড, ফেনী ট্রমা সেন্টারে ৩০ বেড, সোনাগাজীর মঙ্গলকান্দি ২০ শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২০ বেডসহ ৫টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫ বেড করে ২৫ বেড মোট ১০৫ বেডের আইসোলেশন কর্নার করা হয়েছে।

কুমিল্লা : কুমিল্লায় বিভিন্ন দেশ থেকে আগত জেলার বিভিন্ন উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৯২ জন প্রবাসী। জেলার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান জানান, ১৫ মার্চ সকাল পর্যন্ত কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলায়, করোনা ভাইরাস আক্রান্ত দেশ থেকে আসা ৯২ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ১৪ দিন পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার জন্য তাদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। ১৪ দিন পরে করোনা ভাইরাসের কোন লক্ষণ দেখা না গেলে তারা স্বাভাবিক চলাফেরা করতে পারবে।

শরীয়তপুর : বিদেশ থেকে ফেরত আসা প্রবাসীরা করোনা ভাইরাস আক্রান্ত কি-না জানার জন্য ২২৬ জনকে (হোম কোয়ারেন্টাইন) নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তাদের প্রত্যেককে ১৪ দিন বাড়িতে একা একা বসবাস করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। শরীয়তপুর স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়। সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. আবদুর রশিদ জানান, করোনা ভাইরাস রোগী শনাক্ত করার লক্ষ্যে বিদেশ থেকে আগত প্রবাসী নাগরিকদের ২২৬ জনকে নিজ বাড়িতে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। এসব প্রবাসীদের মধ্যে মরিচা, কাতার, কুয়েত, জর্দান, ওমান, মালদ্বীপ, দ. আফ্রিকা, বাহরাইন, ফ্রান্স, ইতালি, সৌদি আরব, ব্রুনাই, মালয়েশিয়া, দুবাই, গ্রিস ও সিঙ্গাপুর ফেরত যাত্রী রয়েছে।

সিভিল সার্জন ডা. এসএম আবদুল্লাহ আল মুরাদ বলেন, আমরা বিদেশ ফেরত ২২৬ জন যাত্রীর প্রত্যেককে ১৪ দিন নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখছি। প্রত্যেকটি সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে আইসোলেশন রুম প্রস্তুত রাখা হয়েছে। র্যাপিড রেসপন্স টিম গঠন করা হয়েছে।

বগুড়া : বগুড়ায় নতুন করে বিদেশ ফেরত আরো ১১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে গত ১১ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত জেলায় মোট ২০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হলো। ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. সামির হোসেন মিশু জানান, বগুড়া সদর ও সোনাতলা উপজেলায় ৫ জন করে ১০জন ও ধুনট ও সারিয়াকান্দিতে একজন করে ২ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, গত ১১ মার্চ থেকে ১৪ মার্চ পর্যন্ত জেলায় মোট ২০ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এর আগে ১৩ মার্চ পর্যন্ত জেলায় মোট ৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়।

গাজীপুর : ইটালিফেরত ৪৪ জনকে গত শনিবার রাতে গাজীপুর মহানগরের পূবাইল এলাকার মেঘডুবি ২০শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে স্থানান্তর করা হয়েছে। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল জাকী জানান, এ হাসপাতালে ৭০জনকে আইসোলেশনের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে ৪৮ জন ওই হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তারা সকলেই ইটালি থেকে গত শনিবার সন্ধ্যায় দেশে এসেছেন। পরে তাদেরকে সেখান থেকে দুটি বাসে করে পুবাইলের ওই হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads