• বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭
ads
নবীনগরে সমবায় মার্কেট নির্মাণ কাজে বাধা, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

নবীনগরে সমবায় মার্কেট নির্মাণ কাজে বাধা, বিপাকে ব্যবসায়ীরা

  • নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৩ জুন ২০২০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর সদরে অবস্থিত আধুনিক সমবায় সুপার মার্কেটের নিজস্ব জায়গায় সম্মুখভাগে থাকা পুরাতন ও জরাজীর্ণ টিনের ঘর ও পুরাতন পাকা দোকান ভেঙে নতুন করে দোকান নির্মাণ ও মার্কেটের সৌন্দর্যবর্ধন করতে নবীনগর পৌরসভা থেকে বাণিজ্যিক ইমারতের নকশা অনুমোদন নিয়েও নির্মাণ কাজে বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছেন সমবায় কর্তৃপক্ষ। স্বার্থ হাসিল করতে না পেরে নির্মাণ বন্ধ রাখার চেষ্টা করছে একটি মহল, এমন অভিযোগ সমবায়ের। নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ায় বিপাকে দোকানের মালিকরা। 

জানা যায়, নবীনগর আধুনিক সমবায় সুপার মার্কেটের সৌন্দর্যবর্ধনে পুরাতন ও জরাজীর্ণ টিনের ও পাকা দোকান ভেঙে নতুন ভাবে নির্মাণ কাজ করার জন্য নবীনগর পৌরসভা থেকে ২০১৮ সালের ১৮ অক্টোবর বাণিজ্যিক ইমারতের নকশা অনুমোদন নিয়ে ২০২০ সালের প্রথম দিকে কাজ শুরু হলেও করোনা ভাইরাসের কারনে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখে সমবায় মার্কেট কর্তৃপক্ষ। সেই সুযোগ নিয়ে একটি মহল ওই স্থানে দোকান ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দাবী করে না পাওয়ার যন্ত্রনা থেকে মার্কেটের নির্মাণকাজে বিভিন্নভাবে বাঁধা প্রধান করে মার্কেটের নির্মাণ কাজ স্থায়ীভাবে বন্ধ রাখার চেষ্টা করছে। এমন অভিযোগ নবীনগর কেন্দ্রীয় বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি নুরুল ইসলাম সরকারের।

অপর দিকে নবীনগর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো.আলমগীর হোসেনের অভিযোগ, সমবায় মার্কেটের পুরনো অংশ ভেঙে নতুন করে মার্কেট নির্মাণ করলে কলেজ ক্যাম্পাসের প্রবেশপথ সরু হয়ে যাবে। এ অভিযোগ এনে গত ২৪-০২-২০২০তারিখে নবীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।

মার্কেটের ব্যবসায়ীরা জানান, আমাদের পুরাতন দোকান ভেঙ্গে নতুন দোকান তৈরি করার কাজ বিলম্ব হওয়ার কারণে আমরা চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। মালামাল নিয়ে রয়েছি চরম বিপাকে। সমবায় সমিতির সভাপতি নূরুল ইসলাম সরকার বলেন, সরকারী সকল নিয়ম কানুন মেনে মার্কেটের নির্মান কাজ শুরু করেছিলাম। করোনা ভাইরাসের কারনে কাজ বন্ধ রাখার সুযোগ নিয়ে একটি মহল নিজেদের অনৈতিক দাবী আদায় করতে না পেরে মার্কেট নির্মাণ কাজে বিভিন্ন ভাবে বাঁধা দিয়ে যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, কলেজের রাস্তাটি সমবায়ের মালিকানা জায়গা থেকে দেওয়া, প্রবেশ মুখে ১৬ ফুট, আর কলেজের সামনে রয়েছে মাত্র ১০ ফুট। তারপরও আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। মার্কেটের কাজে বিঘ্ন ঘটানোর কারণে বিপাকে পড়েছে নিম্নআয়ের ব্যবসায়ীরা। এমপি মহোদয়ের নির্দেশে আপাতত কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। তিনি সঠিক তথ্য উপাত্ত জেনে মানবিক চিন্তা করে মার্কেট নির্মাণের অনুমতি দেবেন এমনটা আমরা আশা করছি।

অধ্যক্ষ মোঃ আলমগীর হোসেন মুঠোফোনে জানান, আমি নিয়মতান্ত্রিকভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি অভিযোগ দিয়েছি, পাশাপাশি এমপি মহোদয়কে বিষয়টি অবগত করেছি, তিনি বিস্তারিত দেখে সিদ্ধান্ত দেবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বলেন, এই জায়গার মালিক সমবায় সমিতি, সামনের জায়গার মালিক জেলা পরিষদ, রাস্তাটি কলেজের। এখানে উপজেলা প্রশাসনের কিছু করার নাই, উনারা যদি মনে করেন বিষয়টি নিয়ে বসতে পারেন।

নবীনগর পৌরসভার মেয়র এড. শিব শংকর দাস জানান, পৌরসভার আইন মেনে সঠিকভাবে অনুমোদন নিয়ে নবীনগর আধুনিক সমবায় সুপার মার্কেট সম্প্রসারণ করা হচ্ছে। পৌর আইনের কোন ব্যতয় ঘটেনি।

তিনি আরো বলেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম এম এসসি, জেলা পরিষদ সদস্য ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি বোরহানউদ্দিন আহমেদ সহ জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ আমার উপস্থিতিতেই সার্ভেয়ার দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে দিয়ে গেছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads