• বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭
ads
সেনবাগে পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

প্রতীকী ছবি

সারা দেশ

সেনবাগে পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

  • সেনবাগ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১১ জুলাই ২০২০

নোয়াখালীর সেনবাগে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে চাঞ্চল্যকর প্রতিবন্ধী তরুণী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী আকরাম (২৫) নিহত হয়েছে।

এসময় সেনবাগ থানার এক এএসআই সহ তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এসময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, দুইটি এলজির গুলি ও একটি চাইনিজ কুড়াল উদ্ধার করেছে করেছে।
ওই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার ভোরে সেনবাগ উপজেলার ৫নং অজুনতলা ইউনিয়নের উত্তর মানিকপুর গ্রামে। বন্দুকযুদ্ধে নিহত আকরাম হোসেন উত্তর মানিকপুর গ্রামের মৃর্ধা বাড়ির আবদুল গফুরের ছেলে।

সেনবাগ থানার ওসি আবদুল বাতের মৃধা জানায়, ১১ জুন সেনবাগের মানিকপুর গ্রামের চাঞ্চল্যকর বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণী (২০) ধর্ষণ মামলার পলাতক প্রধান আসামি আকরাম হোসেন এলাকায় অবস্থান করছে এমন খবর পেয়ে তার নেতৃত্বে থানার ওসি তদন্ত ইকবাল হোসেন, এসআই জসিম উদ্দিন, এসআই নাজমুল, এএসআই লোকেন মহাজন, কনস্টেবল জিয়া ও এমরান হোসনকে নিয়ে রাত আড়াইটার দিকে আকরামকে ধরতে তার গ্রামের বাড়িতে পৌছায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আকরাম ও তার সহযোগীরা গুলি ছুড়ে। এসময় পুলিশও পাল্টা ২২ রাউন্ড গুলি ছুড়লে আক্রামের সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুলিশ ঘটনাস্থলের অদূরে আকরামকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উাদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বর্তমানে লাশ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

ওসি আরো জানান, ১১ জুন বুদ্ধি প্রতিবন্ধী (২০) আকরামের নেতৃত্বে একটি বখাটে দল স্থানীয় একটি কবরস্থানে নিয়ে গণধর্র্ষণ করে। এরপর ধর্ষীতার মা বাদি হয়ে ১০ জনকে আসামী করে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে। তারা বর্তমানে কারাগারে রয়েছে। ঘটনার পর থেকে আকরামসহ মামলা অপর আসামিরা পলাতক ছিল।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads