• বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৯ আশ্বিন ১৪২৭
ads
তথ্য বিনোদন সেবায় এগিয়ে যাচ্ছে গোপালগঞ্জ বেতার

গোপালগঞ্জ বেতার

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

তথ্য বিনোদন সেবায় এগিয়ে যাচ্ছে গোপালগঞ্জ বেতার

  • গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১০ আগস্ট ২০২০

গোপালগঞ্জ বেতার। বাংলাদেশ বেতারের একটি আঞ্চলিক অফিস। এখান থেকে এফএম বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্প্রচার করে শ্রোতাদের প্রশংসা পাচ্ছে। কিছু কিছু সমস্যা থাকলে এ বেতার কেন্দ্রটি নিজস্ব উদ্যোগ নিয়ে অনুষ্ঠান তৈরী এবং সম্প্রচার করছে। যা প্রতিনিয়তই শ্রোতামন্ডলি গানিতিক হারে বাড়ছে। অনুষ্ঠানমালার মধ্যে রয়েছে সংগীত, কবিতা আবৃতি, নাটক, আঞ্চলিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা, উন্নয়ন প্ররিক্রমা। বিশেষ দিনে সম্প্রচার হয় বিশেষ বিশেষ অনুষ্ঠান।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমিতে ২০১৮ সালের ১ নভেম্বর প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ বেতার, গোপালগঞ্জ (এফএম ৯২.০ মেগাহার্জ) কেন্দ্র। প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে কেন্দ্রটি জাতির পিতার নীতি -আদর্শ, অসাম্প্রদায়িক চেতনা লালন করে এবং মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার প্রতি দায়বদ্ধ থেকে জেলার তৃণমূল মানুষের জীবন মান উন্নয়নে তথ্য, শিক্ষা ও বিনোদন মূলক অনুষ্ঠান প্রচার করে আসছে। এসব অনুষ্ঠানে গোপালগঞ্জ এলাকার বিশিষ্ট রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, জেলা প্রশাসক, চেয়ারম্যান, মেয়র, বিভিন্ন সরকারী- বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মরত ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক , স্থানীয় শিল্পী উপস্থাপকবৃন্দ অংশগ্রহণ করে আসছেন।

এ বছর আমাদের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবাষির্কী পালিত হচ্ছে। কেন্দ্রটি তথ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশনায় মুজিব বর্ষ এবং শোকের মাস আগস্ট ২০২০ যথাযথ গুরুত্ব সহকারে পালনে প্রচার করছে বিশেষ বিশেষ অনুষ্ঠানমালা।

গোপালগঞ্জ বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক শ্যামল কুমার দাস জানান গত ৮ আগষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেসা মুজিব-এর ৯০তম জন্ম বাষির্কীতে প্রচার করে “আমাদের বঙ্গমাতা” শিরোনামে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান। আগামী ১৫ আগস্ট -২০২০ জাতীয় শোক দিবসেও দিনব্যাপী প্রচারের জন্য বিশেষ অনুষ্ঠান পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। অনুষ্ঠান সমূহের মধ্যে রয়েছে -সকাল ৮টা ০৫ মিনিটে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ, সকাল ৭টা ২৫ মিনিটে “কাঁেদা বাঙালী কাদোঁ” শিরোনামে গ্রন্থনাবদ্ধ গানের অনুষ্ঠান, সকাল ৯টা ১০ মিনিটে “বজ্রকন্ঠের অমরত্ব” শিরোনামে বঙ্গবন্ধুর দেশে-বিদেশে প্রদত্ত গুরুত্বপূর্ণ ভাষণের উপর ভিত্তি করে গ্রন্থিত অনুষ্ঠান, সকাল ৯টা ৩০মিনিটে “হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু”-শীর্ষক অনুষ্ঠান যেখানে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী থেকে পাঠ ও বঙ্গবন্ধুর জীবন-কর্ম নিয়ে আলোচনা থাকবে, অংশ নিবেন গোপালগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক। সকাল ৯টা ৪৫মিনিটে “অমলিন তুমি বঙ্গবন্ধু” শিরোনামে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা ও গান নিয়ে গ্রন্থিত অনুষ্ঠান। সকাল ১০টা ১০মিনিটে বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান “জাতিসত্ত্বার প্রাণপুরুষ”, অংশ নিবেন গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফর রহমান বাচ্চু, গোপালগঞ্জ পৌরসভার মেয়র কাজী লিয়াকত আলী লেকু ও সরকারী বঙ্গবন্ধু কলেজের সহকারী অধ্যাপক মাহমুদ আলী খন্দকার। সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে “পংক্তিমালায় মহানায়ক” শিরোনামে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত স্বরচিত কবিতা পাঠের অনুষ্ঠান, সকাল ৮টা ৫০মিনিটে প্রচার হবে “ডায়েরীর পাতা” শিরোনামে কারাগারের রোজনামচা গ্রন্থ থেকে পাঠ। আরো থাকবে জাতির পিতাকে নিবেদিত বিভিন্ন খ্যাতিমান শিল্পীদের গাওয়া গান, মুজিববর্ষের গান এবং থাকবে সমসাময়িক বিষয় করোনা ভাইরাসে করণীয়, বন্যায় করণীয় ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ক জনকল্যানমূলক বার্তা। এছাড়া বিকেল ৫টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত জাতীয় শোক দিবসের জাতীয় অনুষ্ঠান বাংলাদেশ বেতার, ঢাকা কেন্দ্রের মাধ্যমে রীলে করা হবে।

শ্যামল কুমার দাস আরও বলেন আমাদের প্রচেষ্টা অব্যহত রয়েছে স্থানীয় লুপ্তপ্রায় সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড পুণ:রুদ্ধার করে তা বেতারে প্রচারিত হলে স্রোতা সংখ্যা বাড়বে, তাছাড়া তথ্য বিনোদন, এলাকার শিক্ষা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান, রেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার কার্যক্রম নিয়ে তথ্যভিত্তিক অনুষ্ঠান এবং উন্নয়ন, সমস্যা, সম্ভাবনা নিয়ে অনুষ্ঠান তৈরী হলে তা বেশী গণমুখী হবে। বেতারের স্রোতাও বেড়ে যাবে।

সহকারি পরিচালক (অনুষ্ঠান) হুমায়ন কবির জানান জাতির পিতার পূণ্য জন্ম ভূমিতে অবস্থিত বাংলাদেশ বেতার, গোপালগঞ্জ কেন্দ্রটি প্রকল্পের আওতাধীন থাকায় বহু সীমাবদ্ধতা রয়েছে- লোকবল স্বল্পতা, বাজেট না থাকা, যানবাহন না থাকা, টেলিফোন লাইন না থাকা ইত্যাদি। বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও বর্তমান আঞ্চলিক পরিচালক শ্যামল কুমার দাস এবং সহকারী পরিচালকদের (অনুষ্ঠান) নিরলস পরিশ্রম, আন্তরিকতা, কর্তব্য নিষ্ঠা, দায়িত্বশীলতা, পেশাদারিত্ব, ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও সহকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ সহযোগিতায় কেন্দ্রটি মান সম্পন্ন সুন্দর সুন্দর অনুষ্ঠান উপহার দিয়ে চলেছে।

গোপালগঞ্জ বেতারের অনুষ্ঠানের নিয়মিত শ্রোতা বাদল সাহা, প্রসুণ মন্ডল, রাজীব আহমেদ রাজু, সৈয়দ আকবর হোসেন জানান গোপালগঞ্জে আঞ্চলিক বেতার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় আমরা এক নতুন দিগন্তে প্রবেশ করেছি। আমজনতা যে কোন মোবাইল ফোনেই এই বেতার কেন্দ্রের অনুষ্ঠানমালা শুনতে পারছেন। এই বেতার কেন্দ্র থেকে এখন শুধুমাত্র সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানাবিধ অনুষ্ঠান শুনতে পাই। আঞ্চলিক অনুষ্ঠানগুলো দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। আজকাল যে কোন ধরনের ব্যক্তিগত পরিবহন, গণ পরিহনের এই এ্ফএম বেতার অনুষ্ঠান শোনা যাচ্ছে। তবে এই কেন্দ্র থেকে সংবাদ প্রচার হওয়াটা খুবই জরুরী। এছাড়া এই গোপালগঞ্জ বেতার কেন্দ্রের এফএম তরঙ্গ (এফএম ৯২.০ মেগাহার্জ) এর অনুষ্ঠানমালা গোপালগঞ্জ সদর, টুঙ্গিপাড়া, কোটালীপাড়া, এর আশপাশ জেলাসমুহ পিরোজপুর, বরিশাল, বাগেরহাট, খুলনা এবং নড়াইল জেলায় শোনা গেলেও গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি, মুকসুদপুর, পার্শ্ববর্তী ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, রাজবাড়ী, মাগুরায় শোনা যায় না।

গোপালগঞ্জ বেতারের উপ-আঞ্চলিক প্রকৌশলি এমএ সোবাহান মাহমুদ জানান গোপালগঞ্জ বেতারের ট্রান্সমিশন এরিয়া এভারেজ ৫০ কিলোমিটারের ১০ কিলোওয়াটের ট্রান্সমিশন। এই এন্টিনার মুখটি বেশী জনবসতি এলাকার দিকে মুখ করার কারণে উল্টো এলাকার বাসিন্দারা ওই নেটওয়ার্কের কাভারেজ পেতে অসুবিধা হচ্ছে। আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষের সাথে এ বিষয়ে দ্রুত যোগাযোগ করে সমস্যার সমাধান করবো।

তিনি আরও বলেন এই সমস্যার সমাধান হলে নড়াইল জেলায় শোনা গেলেও গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি, মুকসুদপুর, পার্শ্ববর্তী ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর, রাজবাড়ী, মাগুরায় শোনা যাবে। আরও কিছু উন্নত প্রযুক্তি ও প্রকৌলের উন্নয়ন করা হলে দেশের সেরা একটি আঞ্চলিক বেতার কেন্দ্র পরিণত হবে।

গত ফেব্রুয়ারীতে বাংলাদেশ বেতারের ইতিহাসে প্রথম নারী মহাপরিচালক হোসনে আরা তালুকদার কেন্দ্রটি পরিদর্শনে এসেছিলেন, তিনি কিছু সমস্যার সমাধান করেন তার তাৎক্ষনিক নির্দেশনায় ২ জন নিরাপত্তা প্রহরী, ১জন অফিস সহায়ক ও ১জন কম্পিউটার অপারেটর নিয়োগ দেন। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সমস্যা সমাধানের পদক্ষেপ নেওয়ার উদ্যাগ নিয়েছেন বলে জানা যায়। বঙ্গবন্ধুর জন্ম ভূমিতে প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ বেতার, গোপালগঞ্জ কেন্দ্রটিকে দ্রুত রাজস্বখাতে আনাসহ সকল সমস্যার সমাধন পূর্বক একটি আধুনিক যুগোপযোগী গণমাধ্যম হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে এ প্রত্যাশা গোপালগঞ্জবাসীর।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads