• রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭
ads
কলমাকান্দায় জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ধান ও গাছের চারা নষ্ট করার অভিযোগ

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

সারা দেশ

কলমাকান্দায় জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ধান ও গাছের চারা নষ্ট করার অভিযোগ

  • কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৫ আগস্ট ২০২০

নেত্রকোণার কলমাকান্দায়  জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে ধান চারা ও গাছ চারা বিনষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের মো. উমর ফারুকের বিরুদ্ধে। 

জমির মালিকানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা দ্বন্দ্বে জমি বেদখল নিতে গিয়ে রোপিত ধান চারা ও গাছ চারা বিনষ্ট করার হয় বলে থানায় একটি  লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

লিখিত অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার লেংঙ্গুরা  ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামের প্রয়াত হামেদ আলীর পুত্রের সঙ্গে একই গ্রামের প্রতিবেশী আ: মজিদের পুত্রদের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছে। দীর্ঘদিন ধরে দু'পক্ষের মধ্যে জমির মালিকানা নিয়ে চলছে বিরোধ। এ নিয়ে স্থানীয় ইউপির চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিগন সামাজিক সালিশের মাধ্যমে বিতর্কিত . ৭৪ শতাংশ ওই জমিটি  মাপিয়া বুঝিয়ে দেন প্রয়াত হামেদ আলীর পুত্র  হাবিবুর রহমানকে । ওই সামাজিক সালিশের সিদ্ধান্তকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে জোরপূর্বক জমি বেদখল নেওয়ার চেষ্টা করে আ: মজিদের পুত্র মো. উমর ফারুক । শনিবার সকালে জোরপূর্বক জমি বেদখল নিতে গিয়ে. ৭৪ শতাংশ জমিতে বি,আর -৩৪ রোপিত ধান  ও শতাধিক গাছ চারা বিনষ্ট করেছে মো. উমর ফারুকের লোকজন। এ বিষয়টি নিয়ে বিকেলে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন হাবিবুর রহমান।

এ বিষয়ে মো. উমর ফারুক বলেন, ওই জমিটি স্থানীয়ভাবে সালিশ করে তারা আমাকে বুঝিয়ে দেন দাবি করে বলেন এরপর থেকে দীর্ঘদিন আমার দখলে আছে ওই জমিটি। পরে শনিবার সকালে হাবিবুর রহমান ফের জোরপূর্বক দখল নেয়ার চেষ্টা চালায়। ওই সময় হাবিবসহ লোকজন রোপিত ধান চারা ও গাছ চারা বিনষ্ট করে তাদের ওপর মিথ্যা অভিযোগ সাঁজিয়েছে।

এ বিষয়ে কলমাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজহারুল করিম বলেন, হাবিবুর রহমানের একটি  লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads