• বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭
কমিউনিটি ক্লিনিক আছে, ডাক্তার নেই!

ছবি : বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

কমিউনিটি ক্লিনিক আছে, ডাক্তার নেই!

উদ্বোধনের পর কোন ডাক্তার আসেনি

  • সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান উপজেলা বালুরচর ইউনিয়নের চর পানিয়া এলাকায় অবস্থিত আশ্রয়ণ প্রকল্পে ২০১৮ 'র জুন মাসে তৎকালীন মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা ও সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানবীর মোহাম্মদ আজিম একটি কমিউনিটি ক্লিনিক উদ্বোধন করেন। যাতে করে এই আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসরত প্রায় ৬০ টি পরিবারের মানুষ সহজে চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে পারে। ভাগ্যবিড়ম্বিত আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাস করা মানুষের দুর্ভাগ্য লাঘব হয়নি সহজে নিতে পারেনি চিকিৎসা সেবা। বসবাসের অযোগ্য আশ্রয়ণ প্রকল্পের অন্যান্য অবকাঠামোর মতো এই কমিউনিটি ক্লিনিকটি ও পরে আছে পরিত্যক্ত অবস্থায় ব্যাবহারহীন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কমিউনিটি ক্লিনিকটি ঘিরে আছে আগাছা পরগাছায় চারদিকে জঙ্গল বেষ্টিত ভূতরে পরিবেশ। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায় বিগত দুই বছর পূর্বে উদ্বোধন করা কমিউনিটি ক্লিনিকে এখন পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা দেবার জন্য স্থানীয়রা কোন ডাক্তার অথবা নার্সের দেখা পাননি। পরিদর্শনে আসেনি কোন জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে প্রশাসনের কোন কর্মকর্তা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ফারুক মেম্বার বলেন, উদ্বোধন করার পর আজ পর্যন্ত কোন চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়নি এই কমিউনিটি ক্লিনিকে, একাধিকবার বিভিন্ন মহলে এই ব্যাপারে আলাপ করেও কোন ফলাফল পাইনি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানবীর স্যার এটা উদ্বোধন করে চলে যাওয়ার পর প্রশাসনের কোন কর্মকর্তাও খোঁজ নিতে আসেনি একবার।

বালুচর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক বলেন, উপজেলা আইন শৃঙ্খলা মিটিং এ একাধিকবার এ বিষয়ে আলোচনা করেছি। সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বদিউজ্জামানের সাথেও আলাপ করেছি। তারা বলেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেই চিকিৎসক স্বল্পতায় ভুগছে।

সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বদিউজ্জামান বলেন, এটা কে বা কাহারা করেছে এই সম্পর্কে আমাদের বিভাগের কেউ অবগত নই এটার সাথে আমাদের স্বাস্থ্য বিভাগের কোন প্রকার সম্পৃক্ততা নেই।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads