• বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭
কুমিল্লায় মাস্ক ব্যবহারে অনিচ্ছা

প্রতীকী ছবি

সারা দেশ

জরিমানাকে ভয় - করোনাকে নয়

কুমিল্লায় মাস্ক ব্যবহারে অনিচ্ছা

  • কুমিল্লা প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২০ নভেম্বর ২০২০

করোনা ভাইরাসের কারণে যে প্রাণহানীর আশংকা রয়েছে, এমন ভয় কারো কাছে নেই। তাই মোবাইল কোর্ট দেখলেই মুখে মাস্ক, তারপর মুখে মাস্ক নেই। মনে হয় জরিমানাকেই তাদের ভয়- করোনাকে নয়।

করোনা প্রতিরোধে মাস্ক ব্যবহার করতে কুমিল্লা নগরী ও জেলার সতেরো উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করলেও মাস্কছাড়া মানুষ আর মোবাইলকোর্টের মধ্যে চলছে "চোর পুলিশ খেলা"। এনিয়ে চালানো হচ্ছে সাড়াশি অভিযান।জনসচেতনতামূলক মাইকিং, লিফলেট এবং মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। এত কিছুর পরও এতে কোন ভ্রুক্ষেপ নেই মানুষের।

মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছেন জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজলমীর।

তিনি বলেন, এ ব্যাপারে এখন মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হচ্ছে। প্রয়োজনে জেলের ব্যবস্থা নেয়া হবে। কারণ একজন করোনা ভাইরাস বহনকারীর মাধ্যমে শতশত মানুষ আক্রান্ত হতে পারে। এতে মৃত্যু ঝুঁকি বাড়বে। নগরীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে দেখা যায়, শতশত মানুষ মাস্ক ছাড়াই চলাফেরা করছে। কেউ মাস্ক পড়লেও তা নেমে এসেছে থুতনিতে। অনেকেই মাস্ক রেখেছেন পকেটে। কারো কাছে নেই কোন মাস্ক। অনেকে জরিমানার ভয়ে সাথে রেখেছেন মাস্ক।

অভিযানের মুখে পড়লে মাস্ক মুখে লাগিয়ে জরিমানা ঠেকাবেন। শুক্রবার জেলার মসজিদ সমূহে অনুষ্ঠিত জুম্মার নামাজে অধিকাংশ মুসল্লীগণের অনেকেরই মাস্ক পড়তে দেখা যায়নি।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয় কডা,নিসর্গ মেরাজ চৌধুরী বলেন, করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। যদিও জরিমানা করোনা মুক্তির পথ নয়। মানুষ সচেতন নাহলে পরিস্থিতি ভয়ানক রুপ নিতে পারে। তিনি আরো বলেন, করোনা আক্রান্তের ব্যাপারটি মানুষকে বুঝাতে হবে। এই মূহুর্তে যে কোন ধরণের সংক্রমণ ব্যাধির লক্ষণ দেখা দিলে করোনা পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে। দ্বিতীয় ধাপের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার জেলায় মাস্ক বিষয়ক ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ২১৭টি মামলায় ২৮১ জনকে ৮৮হাজার ৯৩০টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে জেলা প্রসাশন জানিয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads