• বুধবার, ৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭
হুমকির মুখে সেতু ও শহর রক্ষা বাঁধ

ছবি: বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

কুড়িগ্রামে ধরলা নদী থেকে বেপরোয়া বালু উত্তোলন

হুমকির মুখে সেতু ও শহর রক্ষা বাঁধ

  • রাশিদুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম
  • প্রকাশিত ১৯ জানুয়ারি ২০২১

কুড়িগ্রামে ধরলা নদী থেকে বেপরোয়াভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে উত্তোলন করা হচ্ছে বালু। এতে হুমকির মুখে পড়েছে উত্তর ধরলার তিন উপজেলার ৭ লাখেরও বেশি মানুষের চলাচলের একমাত্র পথ ধরলা সেতু এবং কুড়িগ্রাম পুরাতন শহর রক্ষা বাঁধটি। প্রশাসনের নাকের ডগায় বালু অবৈধ উত্তোলনের বিষয়টি সাধারণ মানুষের মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

কুড়িগ্রাম শহর ঘেঁষে প্রবাহমান ধরলা নদী। এই নদীটি জেলার ভূরুঙ্গামারী, নাগেশ্বরী এবং ফুলবাড়ি উপজেলাকে বিচ্ছিন্ন করেছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সেতুটি জেলার মানুষ দুঃখ ঘোচাতে নির্মাণ করলেও এলাকার কিছু অসাধু ব্যক্তি রাজনৈতিক নেতাদের নাম ভাঙিয়ে গড়ে তুলেছেন শক্তিশালী বালু সিন্ডিকেট।

সপ্তাহ খানেক আগে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত সিএন্ডবি ঘাটের পশ্চিম প্রান্তে আকস্মিক অভিযান পরিচালনা করে বালু উত্তোলনের জন্য বিশেষ কায়দায় তৈরি করা সেতুটি ভেঙে দেয়। পরে   এক সপ্তাহ পার না হতেই আবারো জোসনার ঘাট এবং কুড়িগ্রাম শহর রক্ষা টি-বাধ ঘেঁষে বেপরোয়াভাবে বালু উত্তোলন চালিয়ে যাচ্ছে ওই সিন্ডিকেটটি।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, গোলজার, আজগার, রাজু, আশরাফুল সহ আরো অনেকে স্থানীয় ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক ব্যক্তিদের নাম ভাঙিয়ে ভয়ঙ্কর হুমকির মুখে থাকা শহর রক্ষা বাঁধ ঘেঁষে নদীর উপর বাঁশের তৈরি বিশেষ সেতু নির্মাণ করে প্রতিদিন শত শত ট্রাক্টর ভর্তি করে বালু পাচার করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যক্তি জানান, এই সিন্ডিকেটের নাম বলতে আমরা ভয় পাই। কারণ এরা এলাকার প্রভাবশালী মহলের ছত্রছায়ায় নিরাপদে বাস করে। এদেও বিরুদ্ধে বললে এরা নানাভাবে হুমকি এবং পথেঘাটে লাঞ্ছিত করে। এমতাবস্থায় স্থানীয়রা দ্রুত বালু উত্তোলন বন্ধ করে কুড়িগ্রাম শহর রক্ষা বাঁধ রক্ষার দাবি জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে কথা হলে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম-বালু উত্তোলন বন্ধ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads