• বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭
অধিকাংশ সিসি ক্যামেরা অচল

সংগৃহীত ছবি

সারা দেশ

সান্তাহার রেল স্টেশন

অধিকাংশ সিসি ক্যামেরা অচল

  • বগুড়া প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২২ জানুয়ারি ২০২১

উত্তরাঞ্চলের প্রাচীনতম আদমদীঘির সান্তাহার জংশন রেলওয়ে স্টেশন। দেশের অন্যান্য স্থানের রেলওয়ে স্টেশনগুলোতে অবকাঠামোগত আধুনিকতার ছোঁয়া লাগলেও সান্তাহার রেলওয়ে জংশন স্টেশনে এখন উন্নয়নের ছোঁয়াই লাগেনি। স্টেশনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের লক্ষ্যে সম্প্রতি পুরো স্টেশনটিকে সিসি ক্যামেরার আওতায় নেয়া হয়। স্টেশনের সবকিছু স্টেশন মাস্টারের কক্ষ থেকে পর্যবেক্ষণ করার জন্য পুরো স্টেশনের গুরুত্বপূর্ণ স্থান ১৯টি সিসি ক্যামেরার আওতায় নেওয়া হয়। বর্তমানে ১২টি ক্যামেরা সচল থাকলেও অবশিষ্ট সাতটি সিসি ক্যামেরা দুই সপ্তাহ ধরে অচল রয়েছে। অচল সিসি ক্যামেরাগুলো মেরামত কিংবা সচল করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে না।

আদমদীঘির সান্তাহার রেলওয়ে জংশন স্টেশন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৮৮০ সালে সান্তাহার রেলওয়ে স্টেশনটি স্থাপিত হলেও ১৯০০ সালের দিকে স্টেশনের অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়। এরপর থেকে যাত্রীদের সেবা দিয়ে আসছে এই জংশন স্টেশনটি। সান্তাহার রেলওয়ে জংশন স্টেশনে নিরাপত্তা বেষ্টনী না থাকায় সেখানে অবাধে মাদক সেবন ও নানা অপরাধ প্রবণতা চলে আসছিল। সেদিকে লক্ষ্য রেখে রেলওযে কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি স্টেশন মাস্টারের কক্ষে মনিটর রেখে স্টেশনের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ১৯টি সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে পুরো প্ল্যাটফরম মনিটরিং করতেন। স্টেশন চত্বর সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকায় অপরাধ প্রবণতা অনেকটাই কমে আসছিল। গত দুই সপ্তাহ আগে গুরুত্বপূর্ণ স্থানের সাতটি সিসি ক্যামেরা অচল হয়ে পড়লেও অদ্যাবধি মেরামত করার কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

সান্তাহার রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার হাবিবুর রহমান বলেন, প্রতিদিন এই স্টেশনের ওপর দিয়ে গড়ে ৩৫টি ব্রড ও মিটার গেজ ট্রেন দেশের বিভিন্ন স্থানে চলাচল ও শতশত যাত্রী যাতায়াত করে থাকেন। স্টেশনে জনবল সংকট রয়েছে। সিসি ক্যামেরাগুলো সচল করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads